kolkata news

Highlights

  • আদিবাসী গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার করা হল তিন যুবককে
  • ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মহম্মদবাজার থানার গোপালনগর এলাকায়
  • বছর তিরিশের ওই গৃহবধূর বাড়ি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের রানিশ্বর থানার বাকখোলা গ্রাম

নিজস্ব প্রতিনিধি, পুরুলিয়া: এক আদিবাসী গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার করা হল তিন যুবককে। ঘটনায় আরও এক অভিযুক্ত পলাতক। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মহম্মদবাজার থানার গোপালনগর এলাকায়। ধৃতদেব সিউড়ি আদালতে তোলা হয়। নির্যাতিত মহিলার গোপন জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে আদালতে।

পুলিশ ও আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই আদিবাসী মহিলাকে ধর্ষণে অভিযুক্তদের নাম মনিরউদ্দিন শেখ, নিজামুদ্দিন শেখ, নীলমাধব মির্ধা। অভিযুক্তদের বাড়ি সেকেড্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের লপাড়া গ্রাম। এদের আর একজন সঙ্গী পলাতক। বছর তিরিশের ওই গৃহবধূর বাড়ি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের রানিশ্বর থানার বাকখোলা গ্রাম। ধৃতদের মধ্যে অভিযুক্ত নিজামুদ্দিনের সঙ্গে মোবাইলের রং নম্বরের সূত্রে আলাপ হয়। সেই সূত্র ধরেই মহিলাকে গত শনিবার বিকেলে ডাকে নিজামউদ্দিন। মহিলা একাই রানিশ্বর থেকে বাসে প্রথমে শেওড়াকুড়িতে নামেন।

সেখান থেকে নিজামুদ্দিন মোটরবাইকে চাপিয়ে তাঁকে গোপালনগর জঙ্গলে নিয়ে যায়। সেখানে আসে তার আরও তিন বন্ধু। ইতিমধ্যে ওই মহিলা তাদের কু-মতলব বুঝতে পেরে ডেউচা গ্রামের এক নিকটাত্মীয় দাদাকে ফোন করে তাঁর বর্তমান অবস্থার কথা জানান। সেই দাদা ওই এলাকায় গিয়ে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। ওই জঙ্গল এলাকায় রাতে টহলরত পুলিশের গাড়িকে বিষয়টি জানাযন। ভোররাতে ওই মহিলাকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। ইতিমধ্যেই মহম্মদবাজার থানায় ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করে। পলাতক আর এক অভিযুক্তের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here