ডেস্ক: ভারতের সর্ববৃহৎ ডিজিটাল এনগেজমেন্ট প্ল্যাটফর্ম নিয়ে আসতে চলেছে জিও। জিও-র এই অভিনব উদ্যোগের অংশীদার দ্য বক্স গ্রুপের পোর্টফোলিও কোম্পানি স্ক্রিনস। জিও স্ক্রিনসের সাহায্যে ব্রডকাস্টাররা পাবেন উপভোক্তাদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপনের সুযোগ। জিও-র এই উদ্যোগের ফলে খুব শীঘ্রই টেলিভিশনের একমুখী বিনোদন হয়ে উঠবে ইন্টারঅ্যাকটিভ, এমনটাই জানিয়েছে মুকেশের সংস্থা।

১৭ই মে, বৃহষ্পতিবার মুম্বইতে একটি অনুষ্ঠানে রিলায়েন্স জিও ইনফোকম ঘোষণা করল তাদের এই নতুন উদ্যোগের কথা। স্ক্রিনসের পার্টনারশিপটি হয়েছে জিওর বিদ্যমান গেমিং প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে, যেখানে ইতিমধ্যে প্রায় ৬৫ মিলিয়ন ব্যবহারকারী রয়েছেন। সেই প্ল্যাটফর্মে রমরমিয়ে চলছে জিও ক্রিকেট প্লে ও জিও ‘কন্ বনেগা করোরপতি’। খেলছেন সাধারণ মানুষও।

এই ধরনের ইন্টারঅ্যাকটিভ ব্যবস্থার ফলে ব্রডকাস্টার ও পাবলিশারদের কাজের সুযোগ বাড়বে এবং শক্তিশালীও হবে। পৃথক ব্যবহারকারীদের ভিন্ন প্রোফাইলের মাধ্যমে অ্যাপটি ব্যবহারের সুবিধা থাকায় বাড়বে বিজ্ঞাপনের অবকাশ। দশর্ক ও ব্রডকাস্টারদের মধ্যে স্থাপন হবে ‘রিয়েল টাইম ইন্টার‍্যাকশন’।  বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এই ডুয়েল স্ক্রিন ব্যবস্থা ভবিষ্যতে গেমচেঞ্জার হিসেবে ধরা দেবে এবং টেলিভিশন ও মোবাইলে পরোক্ষ বিজ্ঞাপন ব্যবস্থাকে নতুন ধরনের ব্যাখ্যা দেবে।

জিও-স্ক্রিনস দর্শক ও ব্রডকাস্টারদের মধ্যে দুমুখী সংযোগ স্থাপন করবে। এই অ্যাপ ব্রডকাস্টারদের কনটেন্ট ম্যানেজমেন্টের সুবিধা দেবে, যার সাহায্যে তারা নতুন নতুন ইন্টারঅ্যাকটিভ কর্মসূচী গ্রহণ করতে পারবেন। অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস, জিও কাই-ওএসে ব্যবহার করা যাবে এই অ্যাপটি। এই অ্যাপে প্রত্যেক ব্যবহারকারীর নিজস্ব নিজস্ব প্রোফাইল থাকবে যার সাহায্যে তারা সরাসরি নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানাতে পারবেন এবং আলাদা করে তাদের কাছে বিজ্ঞাপনসমূহ পৌঁছে দিতে পারবে ব্রডকাস্টাররা।

জিও বরাবরই ব্যবহারকারীদের নতুন এবং সর্বোত্তম পরিষেবা দিয়ে এসেছে। সাম্প্রতিক সময়ে ‘জিও স্ক্রিনস’ জিও-র দ্বিতীয় উদ্ভাবনী পরিষেবা। এর কিছুদিন আগেই জিও বাজারে এনেছে বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নির্ভর ব্র্যান্ড এনগেজমেন্ট প্ল্যাটফর্ম ‘জিও-ইন্টার‍্যাক্ট’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here