ডেস্ক: কাকুতি-মিনতিই সার, পাকিস্তান যে নিজের স্বভাব পরিবর্তন করবে না সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেই ব্যাপারটাও দিনের আলোর মতোই পরিস্কার হয়ে যাচ্ছে। পাক সেনার লাগাতার হামলার জেরে এবার বলি হল ৮ মাসের দুধের শিশু হন উপত্যকার আরও ৬ সাধারণ নাগরিকের। সোমবার রাত থেকেই ফের বিনা প্ররোচনায় গোলাগুলি চালাতে শুরু করে পাক সেনা বাহিনী। আর সেই হামলার জেরেই প্রাণ হারাতে হয় সাধারণ নাগরিকদের।

প্রসঙ্গত, দিনদুয়েক আগেই পাল্টা হামলা না চালাতে ভারতের কাছে অনুনয় বিনয় করা হয়েছিল পাকিস্তানের তরফে। কিন্তু ক্রমশ সাফ হচ্ছে যে, পাকিস্তানের সেই আনুগত্য মনোভাব কেবল লোক দেখানো ছাড়া আর কিছুই ছিল না। সূত্রের খবর, সোমবার রাত থেকে কাল্লাই গ্রামের আখনুর সেক্টর লক্ষ্য করে আচমকা গুলিবর্ষণ শুরু করে পাকিস্তান। এরপরই পাল্টা হামলা চালানো শুরু হয় ভারতীয় সেনার তরফ থেকেও। কিন্তু ততক্ষণে অনেকটাই দেরি হয়ে গিয়েছে। পাকিস্তানের এই বর্বরোচিত হামলায় প্রাণ হারাতে হয়েছে উপত্যকার মানুষদের।

অন্যদিকে, পাকিস্তানের গুলিবর্ষণ চলে সোমবার সকাল পর্যন্ত। সাতসকালেই পাক রেঞ্জার্সের গুলি লেগে গুরুতর আহত হন এক পুলিশ আধিকারিক। এছাড়াও এক মহিলা সহ আরও ৫ নাগরিকদের গুলি লাগায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কিন্তু মঙ্গলবার পাক গুলিতে ৮ মাসের শিশুর মৃত্যু হওয়ায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকায় মানুষ। লাগাতার ফায়ারিং-এর ফলে ভয়ে তটস্থ হয়ে রয়েছেন অধিবাসীরাও। কাজকর্ম থেকে রাতের ঘুম লাটে উঠেছে তাদের। তাই এই সমস্যার সমাধান করতে সরকারের কাছে আর্তি জানাচ্ছেন উপত্যকার বাসিন্দারা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here