national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জল্পনা শেষ হল। কংগ্রেস ছেড়ে আজ বিজেপিতে যোগদান করলেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। পদত্যাগ করার আগে থেকেই জল্পনা উঠেছিল যে তিনি কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতেই নাম লেখাবেন। আর দল থেকে পদত্যাগের পর সেই সময়েই অপেক্ষাই ছিল। আজ নয়া দিল্লিতে জে পি নাড্ডার উপস্থিতিতে ভারতীয় জনতা পার্টিতে সামিল হলেন জ্যোতি।

কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগদানের পর জ্যোতিরাদিত্যকে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা আশ্বাস দিয়ে বলেন, ‘দলের প্রথম সারিতে কাজ করবেন তিনি।’ এরপর নিজের যোগদানের বিষয় বক্তব্য রেখে জ্যোতি বলেন, বিজেপি পরিবারে তাঁকে স্বাগত জানানোর জন্য অভিনন্দন সকলকে। নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ এবং জে পি নাড্ডাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তিনি। এরপরেই পুরনো দল কংগ্রেসের দিকে একের পর এক বাণ ছুড়তে থাকেন জ্যোতিরাদিত্য।

সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা বলেন, কংগ্রেসে থেকে নিজের মতো কাজ করতে পারছিলেন না তিনি। আরও বলেন, কংগ্রেস আর আগের মতো নেই, সেখানে থেকে জনসেবা আর সম্ভব হচ্ছিল না। এমনকি, মধ্যপ্রদেশে সরকার গঠনের পর কংগ্রেস যে কোনও কাজ করেনি তাও উল্লেখ করেন তিনি। জ্যোতির কথায়, ১০ দিনের মধ্যে কৃষিঋণ মুকুবের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল তা পূরণ হয়নি। এখন মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস মাফিয়ারাজ চালাচ্ছে বলেই তোপ দাগেন তিনি।

মঙ্গলবার সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীর কাছে ইস্তফাপত্র পাঠিয়ে কংগ্রেস ছাড়েন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। তিনি ইস্তফাপত্র পাঠিয়ে জানান, কংগ্রেসের থেকে মানুষের হয়ে কাজ করতে তিনি পারছেন না। সেই কারণেই এই পদত্যাগ। অন্যদিকে, ইস্তফা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই দলবিরোধী কার্যকলাপের জন্য জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে বহিষ্কার করেছে কংগ্রেস।

সূত্রের খবর, আগামী ২৬ মার্চ রাজ্যসভা নির্বাচনে সিন্ধিয়াকে প্রার্থী করে পাঠতে পারে বিজেপি। যা নিয়ে মঙ্গলবার দিল্লির বিজেপি সদর দফতরে এক হাইভোল্টেজ বৈঠকে বসেন নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ। সেই বৈঠকে সিন্ধিয়ার দলে যোগদান বিষয়ে এবং মধ্যপ্রদেশ দখলের রণনীতি নিয়ে আলোচনা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here