kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ‘কবীর সিং’ সিনেমা ভারতের গ্রামীণ বাসিন্দাদের প্রতিনিধিত্ব করে। ভারতে মূলত ৭০ শতাংশ রয়েছে গ্রামীন এলাকা। যাদের ভালো লাগার বিষয় ছিল ‘কবীর সিং’-এর মতো একটি সিনেমা। বলিউডের প্রত্যেকটা সিনেমার জন্য কিংবা সেই সিনেমাতে অভিনীত অভিনেতাদের চরিত্র নিয়ে নানা কথাবার্তা হয়, তর্ক হয়। এর জন্য কী অভিনেতারা দায়ী? এই ধরনের প্রশ্নই এবার সংবাদমাধ্যমের মধ্যে দিয়ে দর্শকদের উদ্দেশ্যে ছুঁড়ে দিয়েছেন পরিচালক অনুরাগ সিং কাশ্যপ। তিনি জানান, ”প্রথম কথা দেখুন, প্রত্যেকটা বিষয় আপনার উপর ছেড়ে দেওয়া হয়। আপনি কীভাবে নেবেন, আমার যদি কোনও সিনেমা পছন্দ না হয়, কোনও বিষয়ের সঙ্গে আমি যদি সহমত না হই, আমার যদি কবীর সিং-এর মতো সিনেমা নাই ভালো লাগে তাহলে আমি কিন্তু বলতে পারি না এইধরনের সিনেমা কেনই বা বানানো হয়েছে। আমি বলতে পারি না, এইধরনের সিনেমা বানানো উচিত নয়। আমাদের বলা উচিত সবকিছুই সম্ভব।”

তিনি আরও জানান, ”দেখুন বলিউডে সদ্য মুক্তি প্রাপ্ত সিনেমা কবীর সিং নিয়ে একাধিক বিতর্ক হয়েছে। প্রত্যেকটা মানুষ যে কোনও ধরনের সিনেমা বানাতে পারে, দেশের প্রত্যেকটা মানুষের ভাবপ্রকাশের তাদের কথা বলার অধিকার রয়েছে। কবীর সিং গ্রামীণ ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করে। আর এই গ্রামীণ মানুষ  ভারতের মোট জনসংখ্যার ৭০ শতাংশের মধ্যে পড়ে। তাহলে কেন দেখানো হবে না এই সিনেমা? আমার ভালো নাই লাগতে পারে? আমি দেখব না। কিন্তু আমাদের মাঝে মাঝে এইধরনের সিনেমাও দেখা উচিত।”

তিনি আরও জানান, ”সবকিছুকে বিষয়ে রঙ লাগাবার দরকার নেই। ভারতে দীর্ঘ ৭৫ বছর ধরে ইতিবাচক মূলক সিনেমা বানানো হয়েছে। প্রত্যেকটা প্রেমের গল্পের একটা ভালো মিল আছে। এটা কী সবসময়ই ঠিক? তাই মাঝে মাঝে মানুষের মনে অস্বস্তিকর মার্কা সিনেমা দেওয়া উচিত।” অনুরাগ আপাতত কোনও সিনেমার কাজ নিয়ে ব্যস্ত নেই। চলতি বছরেই তাঁর পরিচলনায় মুক্তি পেয়েছে ‘সেক্রেড গেমস-২’। যেখানে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে পঙ্কজ ত্রিপাঠি, নাওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি, সইফ আলি খানের মতো অভিনেতাদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here