ডেস্ক: কামাল হাসানের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ কোন রূপ পেতে চলেছে তা নিয়ে জল্পনার শেষ নেই। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রশ্ন যে নেই তা আগেই সাফ হয়ে গিয়েছিল। এবার জল্পনা তৈরি হয়েছে আরেক দক্ষিণি সুপারস্টার রজনীকান্তের রাজনৈতিক দলে যোগ দেওয়া নিয়ে। একটি ম্যাগাজিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কামাল হাসানের কাছ থেকে অবশ্য ইতিবাচক ইশারাই মিলেছে।

রজনীর সঙ্গে আদৌ তিনি মেলাবেন কিনা সেই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে কামাল বলেন, ”এখনও এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় আসেনি যে আমি রজনীর সঙ্গে হাত মেলাব কিনা। একমাত্র সময়ই সেই উত্তর দিতে পারে। আসলে আমাদের ভাবতে হবে যে আমাদের রাজনৈতিক মতাদর্শ একে অপরের সঙ্গে হাত মেলানোর ক্ষেত্রে সমর্থন করে কিনা। কমলের ‘সময়’ উত্তর দেওয়ার প্রসঙ্গে অনেকেই মনে করছেন অদূর ভবিস্যতে কোনও রাজনৈতিক মঞ্চে একসঙ্গে দেখা যেতে পারে রূপোলী পর্দার এই দুই বিখ্যাৎ অভিনেতাকে।

থালাইভা রজনীকে যখন কামাল হাসানের বিষয়টি নিয়ে জানতে চাওয়া হয় তিনি বলেন, ”এর উত্তর কেবল সময় দেবে। তবে এখন তামিলনাড়ুর রাজনৈতিক সুস্থ্য পরিস্থিতি ফিরিয়ে আনা একান্ত গুরুত্বপূর্ণ। লোকসভা নির্বাচনে একসঙ্গে লড়ব কিনা তাও সময়মতো জানিয়ে দেওয়া হবে।” রজনীর এই জবাব শুনেও জল্পনার জাল বোনা শুরু করেছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কারণ রজনীকান্ত এমনই এক ব্যক্তিত্ব যিনি হটকারী কোনও কথাও বলেন না, সিদ্ধান্তও নেন না। ফলে তাঁর দিক থেকেও ইতিবাচক ইশারা এমন দিকেই ইঙ্গিত যে ভবিষ্যতে রজনীর দলেই নাম লেখাতে পারেন কামাল হাসান।

এই জোটের ক্ষেত্রে আরও একটি নতুন সমীকরণ কাজ করতে চলেছে যা হল উভয় সুপারস্টারের ভিন্ন সম্প্রদায়। একদিকে রজনীকান্ত রয়েছেন যিনি দ্রাবিড় সম্প্রদায়ভুক্ত, অপরদিকে কামাল হাসান যিনি আর্য সম্প্রদায়ভুক্ত। তাঁরা হাত মেলালে এটি তামিলনাড়ুর রাজনৈতিক ইতিহাসে এক অনন্য এবং নজিরবিহীন ঘটনা হতে চলেছে। ১৯৪৯ সালে ডিএমকে ও সিএন আন্নাদুরাইয়ের হাত ধরে যে রাজনীতিতে যে আর্য ও দ্রাবিড় সম্প্রদায়ের মধ্যে মধ্যে বিভাজন তৈরি হয়েছিল, রজনী ও কামাল জোট বাঁধলে তা মিটে যাবে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here