kolkata news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: তারকা হলেই যে তাঁদের পারিবারিক বা ব্যক্তিগত জীবন সবসময় ঝাঁ চকচকে হবে তার কোনও মানে নেই। হতেই পারে ব্যক্তিগত জীবনে একটু অন্যরকম ভাবে থাকেন তাঁরা। যেমনটা বলেছেন অভনেত্রী করিষ্মা কাপুর। তিনি জানিয়েছেন তাঁর মা ববিতা কাপুর কোনওদিন রাজার হালে থাকাটা পছন্দ করতেন না। তাই তাঁদের মানুষ করেছেন আর চার-পাঁচ জনের মতোই। করিষ্মা জানিয়েছেন, ”যখন বড় হচ্ছিলাম সেই সময় দাদুর সিনেমার শ্যুটিং স্পটে যেতাম। কারণ আমার ভালো লাগত শ্যুটিং করতে ও দেখতে। আমার ছোট থেকেই মাথায় ছিল যে অভিনেত্রী হব আর পরিবারের পরম্পরাকে বয়ে নিয়ে যাব। কিন্তু দাদুর একটা কথাই এখনও মাথায় আছে, তিনি বলেছিলেন সিনেমা হল গ্ল্যামার্স জগৎ। কিন্তু গোলাপের বিছানা নয়, কঠিন পরিশ্রম করতে হবে নইলে কাজ পাওয়া যাবে না।”

করিষ্মা আরও জানান, ”আমার মা ছোট থেকেই আমাদের মাটির কাছাকাছি রেখেছেন। এত বড় পরিবারের সদস্য হয়েও আমাদের জীবন যাপন ছিল সরল। আমি আর করিনা আমার বোন, দু’জনেই স্কুল বাসে করে যেতাম লোকাল ট্রেনে যাতায়াত করতাম। অভিনয়েও কেউ সাহায্যে করেনি আমাকে পরিবারের তরফ থেকে। সবাই বলত নিজের চেষ্টায় কাজ পাও আগে তারপর দেখা যাবে। তাই আমি ডেবিউ করে একটি দক্ষিণী রিমেকে সিনেমায়। যেটা বলিউডে হিন্দিতে হয়েছিল। শ্যুটিং-এর সময় জীবনের সেরাটা দিয়েছিলাম। কোনও উপায় ছিল না আমার কাছে। তারপরেই সিনেমাটি জনপ্রিয় হয়ে যায়।”

১৯৯৪ সালে করিষ্মাকে প্রচুর সমালোচনা শুনতে হয়, তাঁর অভিনীত ‘খুদ্দার’ সিনেমার ‘সেক্সি সেক্সি মুঝে লোগ বলে’ গানের জন্য। সেই বিষয়ে করিষ্মা জানান, ”আমার মা বলেছিল অভিনেতাদের কাজ হল দর্শকদের বিনোদন দেওয়া। আমি কিন্তু কোনও বাঁধা আসতে দিই নি আমার কেরিয়ারে। খারাপ সময়ে মাথা উঁচু করেই বেঁচে ছিলাম।” করিষ্মা আরও জানান, ”একজন সিঙ্গেল মাদার কিংবা আমার সিনেমার নির্বাচন নিয়ে কোনওদিন দ্বিতীয়বার ভাবিনি। আমরা এমন একটা জগৎ-এ বসবাস করি যেখানে প্রতি পদে পদে বাঁধা আসবেই। তাই মাথা ঠান্ডা রেখে সব সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত জীবনে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here