এবার কাশ্মীর নিয়ে আন্তর্জাতিক আদালতে মুখ পোড়ার অপেক্ষায় পাকিস্তান?

0
465
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কুলভূষণ যাদব মামলায় আগেই আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে মুখ পুড়েছে পাকিস্তানের৷ কেন্দ্র কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিলের পর তেড়েফুঁড়ে উঠেছে পাকিস্তান৷ এই নিয়ে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদেও তারা কল্কে পায়নি৷ এবার আবার কাশ্মীর নিয়ে তারা আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে ভারতের বিরুদ্ধে দরবার করছে৷ ফলে প্রশ্ন উঠছে আবার একটা হারের জন্য কি অপেক্ষা করছে পাকিস্তান? আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালত হল রাষ্ট্রসংঘের প্রধান বিচারবিভাগীয় অঙ্গ৷ এরা মূলত দুই বা তার বেশি দেশের মধ্যে কোনও আইনি ঝামেলার নিষ্পত্তি করে থাকে৷ মোদী সরকার সম্প্রতি কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করেছে৷ ফলে উপত্যকা বিশেষ মর্যাদা হারিয়েছে৷ এছাড়া কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল আইনে পরিণত হওয়ায় জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখ ২টি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত হয়েছে৷ একে বেআইনি পদক্ষেপ বলে আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে দরবার করেছে পাকিস্তান৷

এর আগে কুলভূষণ যাদব মামলায় আন্তর্জাতিক আদালতে বড়সড় জয় পেয়েছে ভারত। কুলভূষণ যাদবের মৃত্যুদণ্ড রদ করে পুনর্বিচার করা উচিত পাকিস্তানের— পর্যবেক্ষণ আন্তর্জাতিক আদালতের। কুলভূষণকে কনস্যুলার অ্যাকসেস দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছে আন্তর্জাতিক আদালত। শুধু তাই নয়, কনস্যুলার অ্যাকসেস না দিয়ে পাকিস্তান ভিয়েনা চুক্তি ভঙ্গ করেছে বলেও পর্যবেক্ষণ আন্তর্জাতিক আদালতের ১০ সদস্যের বিচারপতির প্যানেলের। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মঞ্চে ধাক্কা খেয়ে শিক্ষা নেয়নি পাকিস্তান৷ কাশ্মীর নিয়ে এখনও তাদের নাছোড় অবস্থান৷

পাকিস্তান এটা দ্বিপাক্ষিক সমস্যা বলে আন্তর্জাতিক মঞ্চে পেশ করার চেষ্টা চালাচ্ছে৷ ভারত সেই দাবি খারিজ করে দিয়েছে৷ নয়াদিল্লি মনে করে, এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়৷ এব্যাপারে অন্য দেশ নাক গলাতে পারে না৷ কাশ্মীর নিয়ে আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে মামলার শুনানির সম্ভাবনা ভারত খারিজ করে দিয়েছে৷ পাকিস্তানের অভিযোগ, কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে৷ ভারত সরকারকে নিশানা করে পাক বিদেশমন্ত্রী কুরেসি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী নেহরুর ভারতকে ধ্বংস করেছেন৷ রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে চিন ছাড়া কাউকে পাশে পায়নি পাকিস্তান৷ ইসলামাবাদের পরমবন্ধু বেজিং ছাড়া বাকিরা জানিয়ে দেয়, কাশ্মীর ভারত-পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়। পাকিস্তানকে খোলাখুলি সমর্থন করেছে চিন। কিন্তু বাকি চার স্থায়ী সদস্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ফ্রান্স ও ব্রিটেন পাশে দাঁড়িয়েছে ভারতের। তারা মনে করে, ভারত-পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক বিষয় কাশ্মীর। এর জেরে একটা কথা চোখ বুজে বলা যায়, আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় জম্মু কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে কোণঠাসা করার চেষ্টা সেগুড়ে বালি৷ আবার মুখ পোড়ার জন্য তৈরি হচ্ছে পাকিস্তান?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here