সেনা হানার ভয়ে আপেল গাছে রাত্রিবাস কাশ্মীরি যুবকদের

0
617
kashmir kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:কাশ্মীর শান্ত আছে৷ কোনও গণ্ডোগল নেই৷ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সুপ্রিমকোর্টকে এমনটাই জানিয়েছে৷ তা এ হেন শান্ত আকশ্মীরে এখন জঙ্গিরা রাতবিরেতে হানা দেয় না৷ মারে না নির্বিচারে মানুষ৷ ৩৭০ ধারা লোপের পরে বদলে গেছে উপত্যকা৷ জঙ্গির বদলে এখন অত্যাচারীর ভূমিকা নিয়েছে নিরাপত্তারক্ষিরা৷ এমনটাই অভিযোগ করেছেন পুলওয়ামার রামহু গ্রামের আপেল চাষী মহম্মদ মাল্লা৷ নিজের অভিজ্ঞতা সাংবাদিকদের শোনান তিনি৷ তাঁর কথায়, রাত বাড়লে তাঁদের গ্রামে বিপদ বাড়ে৷ হানদারেররা আইনের রক্ষক৷ তারা এখানে ভক্ষক বলেই মনে হয় তাঁর৷ তাঁর কথায়, মাঝ রাতে আচমকা ভাড়ি বুটের আওয়াজ পাওয়া যায়৷ আমরা সবাই ভয়ে ভয়ে থাকি৷ বুঝতে পারি না , এবার কার পালা৷ এক একজন গ্রামবাসীর বাড়িতে জোর করে ঢুকে বাড়ির যুবকেদর তুলে নিয়ে যায় আইনের রক্ষকেরা৷ এমন ২৩ জনকে এখনও পর্যন্ত ধরে নিয়ে গেছে৷ যাদের হদিশ এখনো পায়নি তাদের আত্মীয় স্বজন তেকে শুরু করে গ্রামবাসীরা৷ তারা বেঁচে আছে কিনা তাও জানার কোনও উপায় নেই মাল্লাদের কাছে৷

মাল্লার আপেল বাগান আছে৷ আপেল চাষ করে সংসার চালান তিনি৷ একরাতে তিনি শিস শুনতে পান৷ আসলে গ্রামে সেনা ঢুকলে এইভাবেই সাবধান করে দেয় গ্রামবাসীরা৷ সেই শিস শুনে তিনি ভয়ে পাশের আপেল বাগানে সার রাত লুকিয়ে ছিলেন তিনি৷ তিনি গাছের ডালে উঠে সার রাত কাটিয়েছেন৷ তাঁর অভিযোগ, গ্রামের মসজিদের ইমামরাও সেনাদের অত্যাচার থেকে রেহাই পাননা৷ বিদেশি গণমাধ্যম বিবিসি, ওয়াশিংটন পোস্ট এর রিপোর্ট অনুসারে কাশ্মীরি যুবকদের এক বিরাট অংশ প্রবলভাবে সেনাদের অত্যাচারের শিকার হচ্ছে প্রতিনিয়ত৷ বিবিসির একটি প্রতিবেদন অনুসারে পুলওয়ামার ১৩ জন যুবকেক বিনা কারণে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে প্রচণ্ড শারিরীক অত্যাচার করেছে নিরাপত্তারক্ষিরা৷ এমনকী তাদের ইলেকট্রিক শক পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে৷ সআবভাবিকভাবে মোদী প্রশাসন এইসব রিপোর্টকে বিতিতহীন বলেছে৷

পুলওয়ামার পুলিশের বক্তব্য, রামহু গ্রামে প্রচুর পাথরবাজদের বাস৷ তাই এদের শুধুমাত্র দমন করার জন্য অভিযান চালানো হয়েছে৷  পুলিশের দাবি, নীরিহ গ্রামবাসীদের ওপর কোনও অত্যাচার চালানো হয়না৷ তবে পুলিশ প্রশাসনের এই বক্তব্য মানতে নারাজ বিরোধীরা৷ কাশ্মীরের বিরোধী বাম নেতা তরিগামি যেমন সাফ জানিয়েছেন, জেলে বেশিরভাগ নেতা-নেত্রীকে বন্দি করে প্সসান দাবি করছে পরিশ্তিত স্বাভাবিক আছে৷ কাশ্মীরের ভূমিকন্যা শেহলা রশিদ স্পষ্ট অভিযোগ করেছেন সেনারা বর্তমানে কাশ্মীরি দের ওপর ্কথ্য অত্যাচার করছে৷ তাঁর এই বক্তব্যর জন্য তংআর বিরুদএদ দেশদোরহিতার মামলা করেছে দিল্লি পুলিশ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here