ডেস্ক: আজ ছিল সুপ্রিম কোর্টে কাঠুয়া গণধর্ষণে কাণ্ডের শুনানি। ঠিক যেমনটা মনে করা হয়েছিল, তেমনই মামলাটির শুনানি স্থানান্তরিত করে পঞ্জাবের পাঠানকোট আদালতে পাঠিয়ে দিল শীর্ষ আদালত। একই সঙ্গে এই মামলায় যে সিবিআই তদন্তের দাবি করা হচ্ছিল তা খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। ফয়সালা দেওয়ার সময় আদালত জানায়, মামলাটির প্রত্যেকদিনের শুনানি রেকর্ড করতে হবে। মামলার পরবর্তী শুনানি হবে ৯ জুলাই।

একই সঙ্গে এদিন পাঠানকোট আদালতে সরকারি আইনজীবী নিয়োগ করারও অনুমতি দেন বিচারপতিরা। এছাড়াও আদালত জানিয়ে দেয় নির্যাতিতার পরিবার, আইনজীবী এবং সাক্ষীদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা দিতে হবে রাজ্য সরকারকে। উল্লেখ্য, একদিন আগেই কাঠুয়াকাণ্ডে নির্যাতিতার পরিবার জানায় তাদের সিবিআই তদন্ত চাই না। একই সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে বিস্ফোরক মন্তব্য করে নির্যাতিতার মা জানান, হয় দোষীদের ফাঁসি দেওয়া হোক বা তাদের মেরে ফেলা হোক। কারণ অভিযুক্তরা একবার ছাড়া পেয়ে গেলে তাদের পরিবার আর প্রাণে বাঁচবে না।

প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ আজ এই রায় দেয়। অন্যদিকে, কাঠুয়াকাণ্ডে স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ বিচার চেয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছেন অভিযুক্তরা। ফলে এই মামলার পরবর্তী সকল শুনানি পাঠানকোট আদালতেই হবে। তবে আদালতের আজকের নির্দেশের পর অভিযুক্তদের সিবিআই তদন্তের দাবি আদৌ ধোপে টিকবে কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ থাকছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here