ডেস্ক: ”হয় আমাদের গুলি করুন, অথবা দোষীদের সাজা দিন।” কাঠুয়া গণধর্ষণ কাণ্ডে অবশেষে সাংবাদিকের মুখোমুখি হয়ে এভাবেই নিজেদের হতাশা জাহির করলেন নির্যাতিতার মা। অভিযুক্তরা ধরা পড়ার পর থেকেই আশঙ্কায় দিন গুনছে আসিফার পরিবার। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে তিনি জানান, এই মামলায় সিবিআই তদন্ত চান না তারা। ক্রাইম ব্রাঞ্চের তদন্তেই তারা খুশি।

সাক্ষাতকারে নির্যাতিতা নাবালিকা মা বলেন, যখন অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল তখন দোষীদের ধরার কোনও তৎপরতা দেখানো হয়নি। কিন্তু এখন তাঁর আশঙ্কা, অপরাধীরা ছাড়া পেয়ে গেলে তাদের পরিবারের উপর হামলা চালানো হতে পারে। তাই এখন আসিফার মা’র আর্তি, ‘অপরাধীদের ফাঁসি কাঠে ঝোলাও, নাহলে আমাদের গুলি করে মেরে ফেলো।’

অন্যদিকে, দুদিন পরই এই মামলায় শুনানি করতে চলেছে সুপ্রিম কোর্ট। তার আগে আসিফার পরিবারের এই বয়ান মামলাটিকে অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ, এই ঘটনায় মূল দুই অভিযুক্ত ইতিমধ্যেই সুপ্রিম কোর্টে সিবিআই তদন্তের আবেদন জানিয়ে মামলা দায়ের করেছে। তারপর থেকেই প্রাণের ভয়ে সিটিয়ে রয়েছে আসিফার পরিবার। কাঠুয়ায় নাবালিকা গণধর্ষণের মামলাটি সামনে আসার পর থেকেই এই নিয়ে উত্তাল হয়ে রয়েছে গোটা দেশ।

এই ঘটনা ভারতের সামাজিক ভিত্তিকেই এতটা নাড়িয়ে দেয় যে বাধ্য হয়ে আইন পরিবর্তন করতে হয় কেন্দ্রীয় সরকারকে। পসকো আইনে বদল এনে ১২ বছরের নীচে নাবালিকাকে ধর্ষণ করলে মৃত্যুদণ্ডের সাজা লাগু করা হয়। কিন্তু তারপরও ধর্ষণের প্রবণতা যে বিন্দুমাত্র কম হয়নি তা আলাদা করে বলার প্রয়োজন পড়ে না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here