news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: মহামারির জেরে যে পরিস্থিতি উদ্ভুত হয়েছে তাতে প্রত্যেক রাজ্য সরকারের রাজকোষেই টান পড়েছে। এই অবস্থায় নানাভাবে রাজ্যের আমদানি বাড়ানোর চেষ্টায় রয়েছে সরকারগুলি। তবে কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন যে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছেন তা এখনও পর্যন্ত কেউ নিতে পারেননি। শুক্রবার কেরল সরকারের তরফে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, আগামী পাঁচ মাস রাজ্য সরকারি কর্মীদের বেতনের একটা বড় অংশ কেটে নেওয়া হবে। করোনা খাতে তহবিলে যোগদান হিসেবে এই টাকা কাটবে রাজ্য সরকার।

শুক্রবার কেরল সরকার জানিয়েছে, আগামী পাঁচ মাস রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মাসের ছয় দিনের বেতন কেটে নেওয়া হবে। এই টাকা করোনা ত্রাণ তহবিলে জমা হবে। তবে আরও একটা বিষয় এই বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। তা হল- যাদের বেতন মাসিক ২০ হাজার টাকার কম তাদের বেতন থেকে কোনও টাকা কাটা হবে না।

বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আরও জানানো হয়, সমস্ত বিধায়ক, সরকারের নানা বোর্ড সদস্য, এলাকাভিত্তিক প্রশাসনিক সদস্য সহ সকল কমিশনের সদস্যরাও টানা এক বছর ৩০ শতাংশ কম বেতন পাবেন। সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, সকল সরকারি প্রতিষ্ঠান সহ বিশ্ব বিদ্যালয় এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেও এই নিয়ম লাগু হবে। লকডাউনের কারণে রাজস্ব আদায় ধাক্কা খেয়েছেম এবং রাজ্য আর্থিক সমস্যায় রয়েছে বলে জানানো হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে। প্রসঙ্গত, এর আগে বুধবারি মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন জানান, রাজ্যের সকল নির্বাচিত প্রতিনিধি অর্থাৎ মন্ত্রী, বিধায়ক, রাজ্য সরকারের বিভিন্ন বোর্ডের সদস্য ও স্থানীয় সেলফ গভর্মেন্ট বোর্ডের সদস্যরা আগামী এক বছর প্রতিমাসে ৩০ শতাংশ কম বেতন নেবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here