oxygen supply

মহানগর ডেস্ক: কেরলেও এবার অক্সিজেন ঘাটতি দেখা দিতে চলেছে। তবে কেরলে অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দেওয়ার আগেই সতর্ক হতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী পিনরাই বিজয়ন। প্রধানমন্ত্রীকে চিঠিতে পিনরাই বিজয়ন লেখেন, আর প্রতিবেশী রাজ্যগুলোকে অক্সিজেন দিতে পারবে না কেরল। কেরল ইতিমধ্যে তাদের সঞ্চিত অক্সিজেন থেকে দিয়েছে। মাত্র ৮ মেট্রিক অক্সিজেন পড়ে রয়েছে।

সেন্ট্রাল কমিটি অফ অক্সিজেন অ্যালোকেশনের তরফে কেরলকে মে মাসের ১০ তারিখ পর্যন্ত তামিলনাড়ুতে ৪০ মেট্রিকটন অক্সিজেন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। পিনরাই বিয়জন এই প্রসঙ্গে লিখেছেন, রাজ্যের যা পরিস্থিতি, তাতে অক্সিজেন কোনওভাবেই আর অন্য রাজ্যে পাঠানো সম্ভব নয়।

কেরল সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, রাজ্যে এখন অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা চার লক্ষের বেশি। তবে যে হারে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, ১৫ মের মধ্যে রাজ্যে অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা ছয় লক্ষ ছাড়িয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। মে মাসের ১৫ তারিখ থেকে রাজ্যে দৈনিক ৪৫০ মেট্রিকটন অক্সিজেনের প্রয়োজন। তিনি বলেন, রাজ্যে মোট ২১৫ মেট্রিক টন অক্সিজেন উৎপাদন হয়। সেই উৎপাদিত অক্সিজেন থেকে অন্য রাজ্যকে দিয়ে দেওয়া হলে রাজ্যের মানুষ বিপদে পড়বেন।

পাশাপাশি পিনরাই বিজয়ন কেন্দ্রের কাছে ২১৫ মেট্রিক টনের বাইরেও আরও অক্সিজেনের দাবি করেন। তিনি বলেন, ৪৫০ মেট্রিক টন অক্সিজেন লাগবে ১৫ মের পর থেকে। আরও বেশি অক্সিজেন কেন্দ্রকে রাজ্যের জন্য বরাদ্দ করতে হবে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে কেরল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। হু হু করে করেলে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে অক্সিজেনের চাহিদা হাহাকার দেখতে পাওয়া গিয়েছে। কেন্দ্র পর্যাপ্ত অক্সিজেন দিতে পারছেন না বলেও অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here