ডেস্ক: এবার সঙ্কটের মুখে দ্বাদশ শতাব্দীতে তৈরি হওয়া পুরির জগন্নাথ মন্দিরের রত্নভাণ্ডার। এই মন্দিরের মূল্যবান রত্নভাণ্ডারের চাবি কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এই খবর চাউর হওয়ার পড়েই বিভিন্ন মহলে হইচই পরে গেছে। এবিষয় নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পুরীর শঙ্করাচার্য ও স্বামী নিশ্চলানন্দ সরস্বতী।

ঘটনার গুরুত্ব বুঝে ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক বিচারবিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই রত্নভাণ্ডারের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। কয়েকমাস আগেই এই চাবি হারিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে। প্রসঙ্গত, ওড়িশা হাইকোর্টের নির্দেশে প্রায় সাড়ে তিন দশক পর গত ৪ এপ্রিল ১৬ সদস্যের একটি দল মন্দিরের রত্নভাণ্ডারে প্রবেশ করেছিল। পাশাপাশি, আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার একদল বিশেষজ্ঞ রত্নভাণ্ডারের কাঠামোও পরীক্ষা করে দেখেন। কিন্তু কোনও দলই মন্দিরের একেবারে ভেতরে প্রবেশ করতে পারেনি বলে দাবি মন্দির কতৃপক্ষের। গ্রিলের বাইরে থেকেই বিশেষজ্ঞরা তাদের যা পরীক্ষা করার ছিল তাই করেছে। ফলে তাদের কারও কাছেই চাবি থাকতে পারে না বলেই মনে করা হচেছ।

পুরি জেলা প্রশাসনের হাতেও সেই চাবি নেই। তাহলে কার কাছে রয়েছ সেই চাবিয? বিষয়টি নিয়ে বিরোধী দল হিসেবে সুর চড়িয়েছে বিজেপি। ওড়িশা বিজেপির এক মুখপাত্র বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রীর অবিলম্বে বিষয়টি নিয়ে চিন্তাভাবনা করা উচিৎ। চাবি কার কাছে আছে সেদিকে নজর দেওয়া উচিৎ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here