ডেস্ক: শুক্রবার থেকেই দিল্লির রাজপথ লাল রঙে রঙিন হয়ে উঠেছে। গোটা দেশ থেকে আগত হাজার হাজার কৃষক ও বাম সমর্থকরা একত্রিত হয়ে কৃষক আন্দোলনে সামিল হয়েছে। সকলের মুখে একটাই স্লোগান ”অযোধ্যা চাই না, আমরা চাই ঋণ মুকুব!” এই স্লোগানেই গর্জে উঠেছে লক্ষ লক্ষ কৃষক। কৃষকরা এখন তিনটি দাবি সামনে রেখে এই আন্দোলনে সামিল হয়েছে- ঋণ মুকুব, ফসলের দেড় গুণ দাম, তিন সপ্তাহের বিশেষ সংসদীয় অধিবেশন। এই তিন দফা দাবিকে সামনে রেখেই বিক্ষোভে সামিল হয়েছে কৃষকরা। এই প্রথমবার নয় এর আগেও কৃষক আন্দোলন দেখেছে কৃষকরা। কিন্তু সেই সমস্ত সীমাকে ছাড়িয়ে গেছে এবারের দিল্লির কৃষক আন্দোলন। তাই এই ‘কিষান মুক্তি মার্চ’কে সামনে রেখেই মোদী-বিরোধী জোটের ফালায় আরও একবার আহান দিয়ে নিতে চাইছেন বিরোধী নেতারা।

পার্লামেন্ট স্ট্রিটে দাঁড়িয়ে শুক্রবার একযোগে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুললেন কৃষকরা। কৃষি ঋণ মকুবের আবেদন জানিয়ে সংসদের বিশেষ অধিবেশন ডাকার দাবিও তুললেন তাঁরা। এদিন, পার্লামেন্ট স্ট্রিটের সভামঞ্চ থেকে দেশের ২০৮টি কৃষক সংগঠনের তরফে কৃষক ও খেতমজুরদের ফসলের ন্যায্য দাম, স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশ রূপায়ণের দাবি জানানো হয়। সংবাদ সংস্থা সূত্রের খবর, ২০৮ টি কৃষক সংগঠন যারা ভারত কৃষক সংঘর্ষ কো-অর্ডিনেশন কমিটি তৈরি করে এই মিছিলের দাক দিয়েছে। এদিনের সমাবেশে কৃষকদের তরফেও একটি ঘোষণাপত্র তুলে ধরা হয়েছে। কৃষক, ভাগচাষী, খেতমজুর, আদিবাসী কৃষকদের দাবিও তুলে ধরা হয়েছে ওই ঘোষণা পত্রে। এদিনের এই সভায় কৃষকসভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা বলেন, ‘‘দেশজুড়ে কৃষকরা বিক্ষোভে ফুটছেন। তাঁদের এই ক্ষোভকে ভাষা দিতেই এই অভিযান৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here