kolkata news

Highlights

  • বাম ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা এমনিতেই কলেজে প্রকাশ্যে চুমু খাচ্ছে
  • ‘আজাদি’ মানে কি এর চেয়েও বেশি কিছু করতে চাইছে?
  • ভরা সভায় এইভাবেই জানতে চাইলেন বিজেপি নেতা জয় ব্যানার্জি

নিজস্ব প্রতিনিধি ,দাঁতন: বাম ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা এমনিতেই কলেজে প্রকাশ্যে চুমু খাচ্ছে। ‘আজাদি’ মানে কি এর চেয়েও বেশি কিছু করতে চাইছে? ভরা সভায় এইভাবেই জানতে চাইলেন বিজেপি নেতা জয় ব্যানার্জি। সোমবার বিকেলে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাঁতনে নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের সমর্থনে একটি সভার আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে মুখ্য বক্তা ছিলেন বিজেপি নেতা জয় ব্যানার্জি। এদিন বেশ কিছু বিতর্কিত, ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য করেছেন জয় ব্যানার্জি।

জয় ব্যানার্জি এদিন বলেন, ‘তাপস পাল আর আমি দু’জনেই একসঙ্গে ছবি করতাম। দুই বন্ধু ছিলাম। দু’জনেই গ্রামের রোল করতাম। ও গেল তৃণমূলে আমি গেলাম বিজেপিতে। ও গেল ওড়িশার জেলে, আর আমি কলার তুলে সারা রাজ্য জুড়ে দলের প্রচার করছি। এখন ওকে দেখে আমার খুব দুঃখ হয়। ওকে বলেছি তাপস, তুমি কালীঘাটে মা কালীর কাছে গিয়ে ক্ষমা চাও। তবে সাদা মায়ের কাছে যেও না একদম। কালো মায়ের কাছেই থেকো। আজকের পশ্চিমবঙ্গটাকে ডুবিয়ে দিয়ে গেছে ওই সাধারণ রঙটা। গ্রামের মানুষদেরকে বলব আপনারা অনেক সচেতন, সবই বোঝেন। বিজেপিকে একটা সুযোগ দিন সামনের ২১ সালে। না পারলে পাঁচ বছর পর ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেবেন।’

বক্তব্যের শেষে এদিন বামপন্থীদের বিতর্কিত ভাবে কটাক্ষ করেছেন জয় ব্যানার্জি। তিনি বলেন, ‘এখনতো বামপন্থীদের কথা বলাই উচিত নয়। ওরা তো শেষ হয়ে গেছে। ছাত্র-ছাত্রীদের ধরে মাঝে মাঝে ওঠার চেষ্টা করছে। এখন সেই ছাত্রছাত্রীরা মাঝে মাঝে বলছে ‘আজাদি’, ‘আজাদি’। কীসের আজাদি? এমনিতেই তো তোমরা কলেজ প্রাঙ্গণে প্রকাশ্যে চুমু খাচ্ছ। বিদ্যাসাগরের নাম বলে বিদ্যাসাগরের নাম ডোবাচ্ছো। এরপরে আজাদি মানে কি আরও বেশি কিছু প্রকাশ্যে রাস্তায় করতে চাইছো? কংগ্রেসও হয়েছে ওদের দোসর।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here