নিজস্ব প্রতিবেদক, বিধাননগর: স্কুলেরই ছাত্রীর সঙ্গে গড়ে উঠেছিল ভালবাসার সম্পর্ক। সেটা জানত ছাত্রীর বন্ধুরাও। স্যারের সঙ্গে বন্ধুর প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে তাই তাদের মাথাব্যাথাও ছিল না। কিন্তু শালীনতার সীমাটা নিজেই হেলায় পার করে দিলেন শিক্ষক। স্কুলে শিক্ষকতার পাশাপাশি টিউশনও পড়াতেন ওই শিক্ষক। টিউশন পড়ানোর জায়গাতেই একদিন তাদের অন্তরঙ্গ মুহুর্তের ভিডিও তুলে নিল তাদেরই পরিচিত কেউ একজন। তারপর সেই ভিডিও মোবাইল মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ল এলাকায়। পৌঁছে গেল স্যোশাল মিডিয়াতেও। বেশি সময়ও নিল না সেই ভিডিও ভাইরাল হতে। কিন্তু তারপরেই ওই শিক্ষককে ঘিরে তীব্র ক্ষোভ জেগে উঠল ওই এলাকায়। স্কুল চত্বরে ছড়ালো তীব্র উত্তেজনা।

ঘটনার জেরে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বিধাননগর মহকুমার নিউটাউন থানার পাথরঘাটা হাইস্কুলের ছাত্রছাত্রীদের একাংশের পাশাপাশি অভিভাবকেরাও স্কুলে এসে দেখাতে শুরু করলেন বিক্ষোভ। দাবি তোলা হল স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের ওই শিক্ষককে তাদের হাতে তুলে দেওয়ার পাশাপাশি তাকে বরখাস্ত করার। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ সাফ জানিয়ে দেয় ওই শিক্ষককে অপসারণ তারা করবে না। তাতেই যেন ক্ষোভের আগুনে ঘি পড়ে যায়।  বিক্ষুব্ধ জনতার একাংশ শুরে করে স্কুল ভবনে ব্যাপক ভাঙচুর করা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। সেখানেই ঠিক হয় অভিযুক্ত স্কুল শিক্ষককে গ্রেফতার করে তোলা হবে আদালতে। সেই মত ওই শিক্ষককে গ্রেফতার কর%A