Parul

মহানগর ডেস্ক, কলকাতা: এক ক্লিকেই বাঙালি দর্শকের নানা ধরনের বিনোদনের রঙের স্বাদ দিতে তৈরি নতুন ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ‘ক্লিক’। ঘরে বসেই পাবেন নানা ধরনের বিনোদন। আর এবার তাদেরই নয়া নিবেদন,’টাকি টেলস্’।

ads

ইছামতি নদীর পাড়ে ধুন্ধুমার কান্ড। ভারত বাংলাদেশ বর্ডার এর এই নদীর পারেই ক্রমাগত চলছে নারী পাচার। খবর পায় লোকাল থানার সাব-ইন্সপেক্টর শুভঙ্কর বক্সী। তাও হঠাৎ একদিন অজানা অদেখা এক নারী কণ্ঠের কাছ থেকে। হঠাৎ করেই আসে একটি ফোন। ফোনে শুভঙ্কর বক্সীকে বলা হয় ইছামতি নদীর বুকের উপর দিয়েই চলছে নারী পাচার। এই অন্যায়কে বন্ধ করার জন্য সাহায্য চায় এই নারী। প্রাথমিকভাবে সাব-ইন্সপেক্টর শুভঙ্কর এ বিষয়টি গুরুত্ব না দিলেও ধীরে ধীরে তার মানসিকতার পরিবর্তন হয়। তারপরে নারী পাচারের ফেঁসে যাওয়া কিছু মহিলাকে উদ্ধার করেন তিনি।

 

কিন্তু এই ঘটনার ঘনঘটা এতটাই ভয়াবহ হয়ে ওঠে শুভঙ্কর বক্সে নিচের পরিবার এবং তার কন্যা নীলার জীবন পর্যন্ত বিপদের মুখে পড়ে। শুভঙ্কর বক্সীর কাছে ক্রমাগত ফোন আসতে থাকে এই রহস্যময়ী নারী চরিত্রের কাছ থেকে। অথচ তার উদ্দেশ্য সৎ। তাই তিনি শুভঙ্করকে এই নারী পাচার এবং অসামাজিক কাজকর্ম কীভাবে এগিয়ে চলেছে এলাকায় তা নিয়ে বিস্তারিত সমস্ত তথ্য দিতে থাকে। শুভঙ্করের এই লড়াই যতই তীব্র হতে থাকে ততই সে বিষয় নজরে আসতে থাকে এলাকার দাপুটে গুন্ডা এবং গ্যাংস্টার শঙ্কর এবং নরেন সুদ্দার।

কিন্তু তাও শুভঙ্কর চালিয়ে যান তার ইনভেস্টিগেশন। এরপরই জলে কুমির ডাঙায় বাঘের মতন অবস্থায় পড়ে শুভঙ্কর। একদিকে লোকাল গুন্ডাদের দাপট অন্যদিকে শুভঙ্করের সিনিয়রদের থেকেও বাড়তি চাপ বাড়তে শুরু করে এই ঘটনাটি নিয়ে ইনভেস্টিগেশনের ক্ষেত্রে। এরপর শুভঙ্কর কীভাবে নিজের পরিবারকে বাঁচাবে এবং আদৌ কি সে নারী পাচার রুখতে পারবে সব জানতে হলে দেখতে হবে Klikk এর ‘টাকি টেলস্’।

চরিত্র এবং অভিনেতা:

ইন্সপেক্টর শুভঙ্কর বক্সী: শংকর চক্রবর্তী
গ্যাংস্টার শঙ্কর: সাগ্নিক চ্যাটার্জী ( সিনিয়র)
নরেন সুদ্দা: তরঙ্গ সরকার
সিভিক পুলিশ তারক সামন্ত: ভাস্কর দত্ত
রহস্যময়ী নারী জোনাকি: দিশা সমাজপতি
গুন্ডা শঙ্করের ডান হাত এবং জোনাকির প্রেমিক: সাগ্নিক চ্যাটার্জী( জুনিয়র)
ইন্সপেক্টর শুভংকরের কন্যা নীলা: উষসী রায়
দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত এলাকার এমএলএ, জগদীশ: অনির্বাণ ভট্টাচার্য
নেরুলি থানার ওসি, অসীম দত্ত: সুব্রত গুহ রায়
ইন্সপেক্টর শুভঙ্কর বক্সীর স্ত্রী বুলা: নমিতা চক্রবর্তী

পরিচালক: সুব্রত গুহ রায়।
সিনেমাটোগ্রাফি, চিত্রনাট্য এবং গল্পের বুনটে : শুভ্র রায়, শক্তিধর বীর, সৌরভ ব্যানার্জি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here