রবীন্দ্র সরোবরকে ‘বাঁচাতে’ উদ্যোগী সরকার, ছট পুজোর জন্য বিকল্প জলাশয়ের ব্যবস্থা

0
210
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজো আটকাতে বিকল্প জলাশয়ের ব্যবস্থা করছে কেএমডিএ।
আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজো আয়োজন বন্ধ করতে পারেনি রাজ্য সরকার। সরোবরের দূষণ নিয়ে পরপর দু’বছর তাদের মুখ পুড়েছে জাতীয় পরিবেশ আদালতে। তাই এবছর দু’মাস আগে থেকেই উৎসবের মরসুমে রবীন্দ্র সরোবরে দূষণ ঢাকাতে উদ্যোগী হয়েছে কেএমডিএ। দক্ষিণ কলকাতায় ছট পুজো উদযাপনকারীদের জন্য রবীন্দ্র সরোবর এর বিকল্প হিসেবে অন্য দুটি জলাশয় নির্দিষ্ট করে সেখানে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে কেএমডিএ তরফে।

রবীন্দ্র সরোবর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব কেএমডিএ-র। তাই সেখানে পরিবেশ রক্ষা সহ যাবতীয় দায় তাদেরই বহন করতে হয়। সরোবর দূষিত হলে বা সেখানের পরিবেশের ক্ষতি হলে দায় বর্তায় তাদের উপরই। সে কারণেই এবার আগেভাগে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে সংস্থার কর্তারা জানিয়েছেন। সংস্থার এক কর্তা জানান গত বছর এবং তার আগের বছর ছট পুজোর সময় রবীন্দ্র সরোবরে জলদূষণ আটকাতে আদালতের নির্দেশ মেনে বেশ কিছু ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাতে শেষ রক্ষা হয়নি। আইন-শৃংখলার সমস্যা হতে পারে ভেবে বাধ্য হয়ে ছট পুজো উদযাপনকারীদের সরোবর ব্যবহার করতে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এবছর রবীন্দ্র সরোবরে ছট পুজো সম্পূর্ণ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেজন্য বিকল্প হিসেবে ইএম বাইপাসের লাগোয়া দুটি জলাশয়কে ছট পুজোর জন্য নির্দিষ্ট করে দেওয়া হচ্ছে বলে ওই কর্তা জানিয়েছেন। এর একটি পাটুলিতে আরেকটি বাইপাসে রুবি হাসপাতাল এর কাছে। যাতে নতুন জায়গায় ছয় উদযাপনকারীদের অসুবিধা না হয় তাই ওই দুই জলাশয়ে এখন থেকেই প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো তৈরির কাজে হাত দিয়েছে কেএমডিএ।

জলাশয় দুটিকে পরিচ্ছন্ন করার কাজ শুরু হয়েছে।শুধু তাই নয় ছট পুজোর আয়োজন কারীরা যাতে বিকল্প জায়গা সম্বন্ধে জানতে পারেন এবং সহজে সেখানে পৌঁছতে পারেন তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। স্থানীয় কাউন্সিলর ও পুলিশের মাধ্যমে এলাকায় এলাকায় কেএমডিএ র এই উদ্যোগ সম্পর্কে প্রচার চালানো হবে। উৎসবের সময় ওই দুই জলাশয় পৌঁছানোর জন্য বিশেষ বাস পরিষেবা চালু করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। বিকল্প এই উদ্যোগে চলতি বছর রবীন্দ্র সরোবরের চিরাচরিত দূষণ অনেকটাই কমানো সম্ভব হবে বলে কেএমডিএ কর্তারা আশাবাদী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here