kolkata news
Highlights

  • মঙ্গলবার খাস কলকাতায় করোনা আক্রান্ত তরুণের খোঁজ মিলেছে
  • করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহ আদতে যতটা, মানুষের মনে তার থেকেও বেশি ভয় ধরাচ্ছে একাধিক গুজব
  • এই ভুয়ো খবর বা গুজব আটকাতে তৎপর হল কলকাতা পুলিশ

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সারা দেশে করোনা ভাইরাসের দাপট বাড়লেও, এতদিন অনেকটাই সুরক্ষিত ছিল পশ্চিমবঙ্গ। কিন্তু মঙ্গলবার খাস কলকাতায় করোনা আক্রান্ত তরুণের খোঁজ মিলেছে। তবুও করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহ আদতে যতটা, মানুষের মনে তার থেকেও বেশি ভয় ধরাচ্ছে একাধিক গুজব। সোশ্যাল মিডিয়ায় করোনার উৎস, সংক্রমণ পদ্ধতি, উপশম নিয়ে একাধিক ‘গবেষণালব্ধ ফল’ প্রতিনিয়ত শেয়ার হচ্ছে। এইগুলো প্রায় ৯৯ শতাংশই ভুয়ো।

এবার এই ভুয়ো খবর বা গুজব আটকাতে তৎপর হল কলকাতা পুলিশ। করোনা সংক্রান্ত কোনও ভুয়ো খবর কেউ ছড়ালেই তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। ইতিমধ্যেই এই মারণ ভাইরাস নিয়ে জনগণকে সতর্ক করতে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া শুরু করেছে কলকাতা পুলিশ। করোনার উপসর্গ কারও মধ্যে আছে কিনা, সেই দিকেও নজর রাখা হচ্ছে। কয়েকদিন আগেই ওড়িশায় করোনা ভাইরাস সম্পর্কে ভুয়ো তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছিল। এবার সেই পথে হাঁটছে কলকাতা পুলিশও।

কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা নিজে ট্যুইট করে জানিয়েছিলেন, ‘ গুজবে কান দেবেন না। সব তথ্য যাচাই করে বিশ্বাস করবেন। করোনা ভাইরাস রুখতে যা যা করনীয় তা করুণ। সুস্থ ও সুরক্ষিত থাকুন।’

‘অনুরোধ, সত্যতা যাচাই না করে অযথা করোনা-সংক্রান্ত মেসেজ ফরোয়ার্ড করবেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা এ ধরনের পোস্টের উপর নজর রাখছি। যাঁরা মিথ্যে খবর/ গুজব ছড়াবেন, তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

অন্যদিকে, কলকাতা পুলিশের সাইবার ও সোশ্যাল মিডিয়া সেলের পক্ষ থেকেও সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি চালানো হচ্ছে। করোনা নিয়ে একাধিক গুজব রুখতে কড়া পদক্ষেপ নিক পুলিশ, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এই প্রসঙ্গে সিনিয়র এক আইপিএস অফিসার বলেন, ‘কোনও তথ্য যাচাই না করে তা ফরোয়ার্ড করাটাও কিন্তু গুজব ছড়ানোরই সামিল। যদি কোনও তথ্য দেখার পর আপনার মনে সেটা নিয়ে কোনও সন্দেহ থাকে, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে নিকটবর্তী পুলিশ থানায় যোগাযোগ করুন।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here