মহানগর ডেস্ক: রবিবাসরীয় ব্রিগেডে বাংলা তথা কলকাতাকে নতুন স্বপ্ন দেখালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কলকাতা কে ‘সিটি অফ জয়’ থেকে ‘সিটি অফ ফিউচার’ বা ‘ভবিষ্যতের শহর’ গড়ার ডাক দিলেন মোদি। গেরুয়া শিবির ক্ষমতায় এলে আগামী ৫ বছরে যা উন্নয়ন হবে তা আরও ২৫ বছরের ভিত তৈরি করবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

এই দিনের ব্রিগেড থেকে তিনি বলেন, ‘আমরা শুধুমাত্র ক্ষমতাবদল চাই না, বাংলায় উন্নয়নকেন্দ্রিক সরকার গড়তে চাই। ৫টা বছর নষ্ট হয়ে গিয়েছে। আর সময় নষ্ট করা যাবে না। আসল পরিবর্তন আনতে হবে। বাংলার মানুষকে মনে রাখতে হবে, কী ভাবে বার বার তাঁদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছে।’

বাংলার উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আগামী ৫ বছরে বাংলায় যে বিকাশ ঘটবে, তাতে পরবর্তী ২৫ বছরের ভিত তৈরি হবে। বাংলার উন্নয়নের, সমৃদ্ধির কথা ভেবে বিজেপিকে ভোট দিন। ২০৪৭ সালে স্বাধীনতার ১০০তম পূর্তি। আর সেই সালেই বাংলা আবার দেশের মধ্যে শীর্ষস্থানে উঠে আসবে । মাছ হোক কিংবা ভাত, বন্দর হোক বা বাণিজ্য, বাংলার মাটিতে সবকিছু রয়েছে। শুধু সঠিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে এগোতে হবে। আমাদের এনডিএ সরকার সেই লক্ষ্য নিয়েই এগোবে। কলকাতা ‘সিটি অফ জয়’। কলকাতার কাছে সমৃদ্ধশালী অতীত এবং সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ রয়েছে। কলকাতার সংস্কৃতিকে সুরক্ষিত রেখে তাকে ভবিষ্যতের শহর বানানোর সামনে কোনও প্রতিবন্ধকতা নেই।’

এরপরেই মহানগরের আমূল পরিবর্তনের ডাক দেন মোদি। তিনি বলেন, ‘রাজ্য সরকারের দুর্নীতিমূলক কমিশনবাজির জেরে বিমানবন্দর সংলগ্ন এলাকার উন্নয়ন আটকে রয়েছে। বহু জায়গায় আটকে রয়েছে মেট্রোর কাজও। রেলওয়ে রাজ্য সরকারের থেকে জমি নেয়। তাও আটকে দিচ্ছে। কিন্তু ক্ষমতায় এলে কলকাতার স্মার্টসিটি প্রকল্প আনবে বিজেপি। নতুন উড়ালপুল গড়া হবে। ঝুপড়িবাসীদের পাকা বাড়ি করে দেওয়া হবে। ঠেলাওয়ালাদের স্বনিধি যোজনার আওতায় আনা হবে। শুধুমাত্র কলকাতাই নয়, এর সঙ্গেই বাংলার অন্য শহরেও আত্মনির্ভরতার লক্ষ্য নিয়ে এগোব আমরা। যাতে পড়াশোনা, রোজগার এবং প্রবীণদের জন্য ওষুধের বন্দোবস্ত করা যায়। আমরা বাংলায় নতুন শিল্প আনব। বাংলায় আসল পরিবর্তন আনতে হলে গ্রাম পঞ্চায়েত, নগর নিগম এবং পুরসভার পারদর্শিতা ততটাই জরুরি। বাংলায় যে ভাবে গণতন্ত্রকে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, বিজেপি আবার তার পুনঃনির্মাণ করবে।’

এরপরেই রাজ্যবাসীকে এক গুচ্ছ প্রতিশ্রুতি দেন নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, ‘বাংলা আবার নতুন করে গড়া হবে। বাংলার সংস্কৃতির রক্ষা করা হবে। আমি নিজে শিল্প তৈরির প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি।বাংলার মানুষের উন্নতির জন্য ২৪ ঘণ্টা কাজ করব।প্রতি মুহূর্তে আপনাদের জন্য বাঁচব, আপনাদের সেবা করব। প্রতি মুহূর্তে কাজের মধ্যে দিয়ে আপনাদের মন জিতব।’

বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই ব্রিগেড ছিল বিজেপির শক্তি প্রদর্শনের লড়াই। সেই মঞ্চে দাঁড়িয়েই রাজ্যবাসীর কাছে একের পর এক প্রতিশ্রুতি দিলেন প্রধানমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here