‘আনন্দনগরী’তে নেই উচ্ছ্বাস! নিঃশব্দে জন্মদিন কাটাল ৩৩০ বছরের ‘বুড়ো’ কলকাতা

0

সৌভিক বাগচী: সেই কবেকার কথা৷ জোব চার্নক নামে এক সাহেব এসেছিলেন বাংলায়৷ কলকাতা, গোবিন্দপুর ও সুতানুটি এই তিনটি গ্রাম নিয়ে তিনি প্রতিষ্ঠা করলেন আজকের কলকাতা৷ সালটা ১৬৯০৷ আজকের কল্লোলিনী তিলোত্তমার পথ চলা সেই শুরু৷ কলকাতা দেখেছে অনেক উত্থান-পতন৷ বিশ্বাস-অবিশ্বাসের কাহিনি৷ দেখেছে ১৯০৫ সাল পর্যন্ত ভারতের রাজধানী ছিল কলকাতাতে৷ তখন থেকে ভারতের সংস্কৃতির পীঠস্থান আমাদের প্রিয় শহর কলকাতা৷

কলকাতা ও বাঙালি ওতোপ্রতভাবে জড়িত৷ বাঙালির শিক্ষা, সংস্কৃতি সবটাই এই শহরটাকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে৷ কত শত কাহিনি আছে কলকাতার৷ ভাব থেকে বাস্তব জগতে বিপ্লব ঘটিয়েছে কলকাতা৷ রামকৃষ্ণ- বিবেকানন্দ শুধু ভাবজগতের নয় তাঁরা বাঙালিকে উদারতার পাঠও দিয়ে গেছেন৷ রামমোহন-বিদ্যাসাগর ভেঙে দিয়েছেন যাবতীয় কূ-সংস্কার৷ আজকে বাঙালির অসাম্প্রদায়িক, উদারতার জন্মদিয়ে গিয়েছেন তাঁরা৷ দ্বারকানাথ ঠাকুর এই কলকাতা থেকেই দেখিয়েছেন চাইলে বাঙালি ইংরেজদের সমকক্ষ শিল্পপতি হতে পারে৷ সিরাজ ইংরেজদের এই কলকাতায় জীবন্ত পুড়িয়ে মেরেছিলেন৷ তবে শেষ রক্ষা করতে পারেননি৷ তাঁর সেই আগুনকে বাড়িয়ে নিয়ে গিয়েছে বাঙালি বিপ্লববাদ৷ ইংরেজদের বিরুদ্ধে আপোশহীন সংগ্রাম দেখেছে কলকাতা৷

শিক্ষার ক্ষেত্রে ব্রিটিশ ভারতে সব রাজ্যের চেয়ে এগিয়ে কলকাতা৷ নারী শিক্ষায় এগিয়ে কলকাতা৷ চিকিৎসা শিক্ষার ক্ষেত্রেও পথিকৃৎ কলকাতা৷ শিক্ষা থেকে সংস্কৃতি সবেতেই আলো দেখিয়েছ কলকাতা যুগ যুগ ধরে৷ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম কলকাতায়৷ কলকাতাকে কেন্দ্র করে বাংলা সাহিত্যকে বিশ্বের আঙিনায় পৌঁছে দিয়েছিলেন তিনি৷ নোবেল পেয়ে কলকাতাকে গর্বিত করেছিলেন তিনি৷ সাহিত্য-সংগীতকে বার বার পথ দেখিয়েছে কলকাতা৷ দেশের বৌদ্ধিক স্তরের বিকাশ এই কলকাতাতেই ঘটেছিল৷ কলকাতা মানেই ছিল বাংলা৷ এই জন্য গোখেল বলেছিলেন বাংলা আজ যা ভাবে, ভারত কাল তা চিন্তা করে৷ স্বাধীনতার যুদ্ধে ভারতকে পথ দেখিয়েছিল কলকাতা৷এটা অতিকথন নয়৷ একেবারে কেঠো বাস্তব৷ আবার এই কলকাতাই ছিল ভগিনী নিবেদিতা থেকে শুরু করে মাদার টেরিজার কর্মভূমি৷ ব্রিটিশদের বুটের সামনে ১১জন বাঙালির জোড়া খালি পা’র আইএফএ শিল্ডের ফাইনালে জয় বাঙালির বীরগাঁথায় চিরকালের জন্য জায়গা করে নিয়েছে৷ বাঙালি দেখিয়েছে শুধু সাহিত্য নয় ক্রীড়াতেও তারা সেরা৷ দেখিয়েছে কলকাতা৷

কলকাতা দেখেছ বাংলা ভাগ৷ দেখেছ হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির রাখিবন্ধন৷ দেখেছ এই দুইয়ের মধ্যে দাঙ্গাও৷ দেখেছে আরও অনেক কিছু৷ ৩৩০ বছরে বাঙালিদের রাজনীতির পটপরিবর্তনের সাক্ষীও এই কল্লোলিনী তিলোত্তমা৷ কলকাতা দেখেছে উদারতা থেকে বাঙালির মৌলবাদী ভাবধারায় অধঃপতন৷ একসময় নব্য বাঙালিদের উদার আন্দোলন কলকাতাকে গর্বিত করেছে৷ আবার রামকে নিয়ে অস্ত্র মিছিল কলকাতাকে লজ্জিত করেছে৷

চিৎকার, চেঁচামিচি, মাথাব্যথা- এই নিয়েই শুধু কলকাতা৷ এই শহরে হৈচৈ আল লিমিটেড৷ ভালবাসা-মন্দভাষা নিয়ে আজও চরৈবেতি আমাদের প্রিয় শহর কলকাতা৷ ৩৩০ এ কল্লোলিনী তিলোত্তমা প্রমাণ করেছে বয়সটা শুধুমাত্র সংখ্যা৷ তাই ৩৩০এও আরও তরুণ কলকাতা৷আর আমাদের প্রিয় রসোগেল্লার জন্ম হয়েছে নবীনচন্দ্র দাসের হাত ধরে এই কলকাততেই৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here