ডেস্ক: রাজ্যে রথের চাকা গড়ানোর আগেই সজোরে ধাক্কা খেল ভারতীয় জনতা পার্টি। বিজেপির হয়ে প্রচারে থাকার বিষয়ে সমস্ত জল্পনা উড়িয়ে দিলেন জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী কুমার শানু। কোনও রাখঢাক না রেখেই জানিয়ে দিলেন, বিজেপির রথযাত্রায় থাকবেন না তিনি।

লক্ষ্য ২২ হোক বা ২৫, সহজ হবে না মোটেই। লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় থাবা বসাতে চাইলে জোরদার প্রচার চালাতে হবে বিজেপি। সঙ্গে লাগবে কিছু তারকা খচিত মুখ। কারণ প্রার্থী পদে সু-পরিচিত মুখ না হলে কেবল পদ্ম ছাপ দেখিয়ে ভোট জোগাড় করা মুশকিল। মোদী-শাহ ময়দানে তো নামছেনই, কিন্তু তাতেও খুব একটা স্বস্তিতে নেই গেরুয়া শিবির। চাই আরও জোরদার প্রচার। তাই বিখ্যাত গায়ক কুমার শানুকেই হাতিয়ার করে প্রচারের হাওয়া আরও গরম করতে চেয়েছিল বিজেপি। কিন্তু সে আশায় পড়ল জল। লোকসভা উপলক্ষ্যে হোক বা রথযাত্রায়, বিজেপির প্রচারে থাকবেন না বলে জানিয়ে দিলেন এই শিল্পী।

উল্লেখ্য, দিন দুয়েক আগেই বিজেপির তরফে প্রকাশ করা তালিকায় দেখা যায় শিলিগুড়ি ও শ্রীরামপুরের সভায় বক্তা হিসাবে থাকছেন বাংলার জনপ্রিয় গায়ক কুমার শানু। আর এখান থেকেই নতুন করে শুরু হয় জল্পনা। তবে কি বাবুল সুপ্রিয়র মতো আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে কুমার শানুকে ভোটে দাঁড় করাতে চাইছে বিজেপি? তা যদি হয় তবে অবশ্য আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই। রাজ্য সরকার যে তাঁকে ব্রাত্য করে রেখেছে সংবাদ মাধ্যমের সামনে এ কথা বহুবারই বলেছেন শানু। ফলে তৃণমূলের উপর একটা ক্ষোভ যে তাঁর রয়েছে একথা বলাই যায়। রাজনৈতিক দিক দিয়ে কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে শানুর ঘনিষ্ঠতা থাকলেও ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তিনি।

কিন্তু এদিন কুমার শানুর তরফ থেকে নেতিবাচক ইঙ্গিত পাওয়ার পরই স্পষ্ট হয়ে যায়, বিজেপির হয়ে প্রচার করবেন না তিনি। কুমার শানু জানাচ্ছেন, তাঁর সঙ্গে আলোচনা না করেই তালিকায় নাম ঢুকিয়েছিল বিজেপি। আপাতত তিনি কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নন বলেও দাবি কুমার শানুর। আচমকা বিজেপির পরিকল্পনা মাঠে মারা যাওয়ার ফলে কিছুটা নিরাশ হতেই হয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। বিজেপির রাজ্য নেতা সায়ন্তন বসুর অবশ্য দাবি, কুমার শানু তাদের দলের সদস্য হয়েছিলেন। এই সিদ্ধান্তের পেছনে শাসকদলের প্রছন্ন চাপ থাকতে পারে বলেও মনে করছেন তিনি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here