ডেস্ক: আজ, বুধবার কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ নিচ্ছেন কংগ্রেস-জেডিএস জোটের প্রার্থী এইচডি কুমারস্বামী। দীর্ঘ প্রায় কয়েক সপ্তাহের টানাপড়েন অতিক্রম করে রাজধানী বেঙ্গালুরুতে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান।

এদিন কুমারস্বামীর শপথ গ্রহণ করলেও সর্বভারতীয় রাজনীতির গতিপথে আজকের দিনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে। কারণ এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমেই বিরোধী নেতারা এক ছাদের তলায় আসছেন। ২০১৯ সালে বিজেপি সরকারকে পর্যুদস্ত করতে গেলে বিরোধী হাত না ধরলে যে চলবে না তা কিছুটা হলেও বুঝেছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি। সেই কারণেই, কর্ণাটকে সরকার গঠনের সুযোগ পাওয়ার পরই বিরোধী ঐক্যের উপর জোর দিয়েছিলেন তিনি।

অন্যদিকে, আজকের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের মধ্যমণি অবশ্যই হতে চলেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গতকালই বেঙ্গালুরু পৌঁছে গিয়েছেন তিনি। সেখানে পৌঁছে কুমারস্বামীর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন তিনি। এই নেহাত সৌজন্য সাক্ষাতের আড়ালে যে অন্য রাজনৈতিক সমীকরণ লুকিয়ে রয়েছে তা বলে দেওয়ার জন্য রাজনৈতিক বোদ্ধা হওয়ার প্রয়োজন নেই। কারণ, বারবারই মমতা আঞ্চলিক দলগুলিকে নিয়ে থার্ড ফ্রন্ট গঠনের পক্ষে সওয়াল করেছেন। ফলে থার্ড ফ্রন্ট গঠনের স্বার্থে আঞ্চলিক দলগুলির সকল মাথাদের একমঞ্চে পাওয়া যাবে এই অনুষ্ঠানের মধ্যে। থাকবেন অখিলেশ-মায়াবতীও।

ফলে আজকের অনুষ্ঠানের মাধ্যমেই যদি থার্ড ফ্রন্টের আগামী দিনের নীল নকশা এঁকে ফেলা হয় তাতেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। কর্ণাটকে জোট সরকার গঠন হলেও এর ভবিষ্যৎ নিয়ে অবশ্য সন্দিহান কুমারস্বামী নিজেই। মঙ্গলবারই তিনি বলেন, ‘মানুষের মনে সন্দেহ রয়েছে আমরা জোট সরকার ৫ বছর চালাতে পারব কিনা। এটা আমার জন্য চ্যালেঞ্জের মতো।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here