ডেস্ক: শেষ পর্যন্ত যাবতীয় আশঙ্কা ও নাটকের অধ্যায় পেরিয়ে শুক্রবার কর্ণাটক বিধানসভায় কংগ্রেস-জেডিএসের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামী। এই জোটের সমর্থনে ভোট দেন ১১৭ জন বিধায়ক। কিন্তু এদিন আস্থা ভোটের আগেই, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া ও বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর উপর ক্ষোভ উগরে দিয়ে বিধানসভা ভবন থেকে ‘ওয়াকআউট’ করেন ৫৫ ঘণ্টার মুখ্যমন্ত্রী ইয়েদুরাপ্পা। তাঁর সঙ্গে বিধানসভা ভবন ছেড়ে বেরিয়ে যান সকল বিজেপি বিধায়কেরা।

আস্থাভোটে জয়ী হয়ে কুমারস্বামী বলেন, অনেক চিন্তাভাবনা করেই এই জোট সরকার গঠনের পথে হেঁটেছেন তিনি। তাঁর দল জেডিএসের ভবিষ্যও যে এই জোটের উপরই টিকে রয়েছে তাও জানান কুমারস্বামী। আস্থা ভোটের আগে বিধানসভার স্পিকারের জন্য হওয়া নির্বাচনও কংগ্রেস জিতে নেয়। বিজেপির স্পিকার পদ থেকে এস সুরেশ কুমার নিজের নাম তুলে নেন। প্রসঙ্গত, এর আগেও কংগ্রেসের প্রাক্তন স্পিকার ছিলেন এস রমেশ কুমার।

আস্থা ভোটের আগে ভাষণে কুমারস্বামী বলেন, মানুষের রায় কখনই বিজেপির পক্ষে ছিল না। বিধানসভা ভবন ত্যাগ করার আগে ইয়েদুরাপ্পা এদিন হুমকি দিয়ে যান যে, কুমারস্বামী সরকার কৃষকদের ঋণ মকুব না করলে রাজ্যব্যাপী বিরোধ প্রদর্শন করবেন তারা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here