মহানগর ওয়েবডেস্ক: চিকিৎসকদের কর্মবিরতি ও তার জেরে রাজ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। সম্প্রতি সাগর দত্ত হাসপাতালে শিশু মৃত্যু ও পিতার কান্না চোখে জল এনেছে দেশবাসীর। সেই ঘটনায় এবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দিকে সরাসরি অভিযোগের আঙুল তুললেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ কুণাল ঘোষ।

এদিন উত্তর ২৪ পরগনা কামারহাটির সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজে গিয়েছিলেন কুণাল ঘোষ। সেখানে গিয়ে শাসকদলের সস্তার রাজনীতির বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলেন কুণাল। তিনি বলেন, সাগরদত্ত হাসপাতালে মঙ্গলবার পেডিয়াট্রিক ভেন্টিলেটর নেই বলে শিশু মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। অথচ এই হাসপাতালের পরিকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য আমি রাজ্যসভার সাংসদ থাকাকালীন ৫০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেছিলাম। সেই টাকা ফিরিয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। তাতে আমি রীতিমতো বিস্মিত হই। ৫ বছর পর টাকা ফেলে রাখার পর, উন্নয়নের প্রশ্নে কীভাবে কোনও হাসপাতাল টাকা ফেরত দিতে পারে? আজ যদি এই সমস্ত যন্ত্রপাতি ওই টাকায় কেনা হত তাহলে এই শিশুমৃত্যুর ঘটনা ঘটত না। এই মৃত্যু চিকিৎসকদের কর্মবিরতির জন্য দায়ি করা হচ্ছে কিন্তু তা নয়, এই ঘটনার জন্য দায়ি তৃণমূলের স্বস্তার রাজনীতি।

রাজ্যর তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রি ছিলেন মমতা। আমি মমতার কাছে অবশ্যই এই প্রশ্নের জবাব চাইব। হাসপাতালের তৎকালীন প্রিন্সিপাল যিনি এই টাকা ফেরত পাঠিয়ে দিলেন তাঁকে বের করে অবিলম্বে যেন বরখাস্ত করা হয় কারণ। এই শিশু মৃত্যুতে পরোক্ষভাবে দায়ি তিনি। পাশাপাশি কুণাল আরও বলেন, টাকা ফেরতের প্রসঙ্গে জানানো হয়, স্বাস্থ্য ভবনের নির্দেশ ছিল ও তৎকালীন রোগী কল্যাণ সমিতির সিদ্ধান্ত ছিল। প্রসঙ্গত, তখন তৎকালীন রোগী কল্যাণ সমিতির প্রধান ছিলেন মদন মিত্র এখন তাপস রায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here