মহানগর ওয়েবডেস্ক: গত দুমাস ধরে ভারত-চীন সীমান্তের পরিস্থিতি উত্তেজনামূলক ছিল। তবে গত ১৫ জুন ২০ জন সেনা জওয়ানের মৃত্যুতে পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠেছে। যদিও এলএসি’তে উত্তেজনামূলক পরিস্থিতি নতুন কিছু নয়। দুই দেশের সেনা জওয়ানদের মধ্যে ঝগড়া ঝামেলা হয়ই, আবার আলোচনার মাধ্যমে স্বাভাবিক হয়ে যায় পরিস্থিতি। তবে এবার পরিস্থিতি হিংসাত্মক রূপ নিয়েছে। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, এই ঘটনার পিছনে রয়েছে চিনের মেজর জেনারেল সু কিলিয়াং। তার ইশারাতেই ঘটেছে এই হিংসাত্মক ঘটনা।

কিন্তু কে এই সু কিলিয়াং? জানা যায় চীনের রাষ্ট্রপতি শি জিন পিন সেন্ট্রাল মিলিটারি কমিশনের প্রধান। এর ঠিক পরেই দায়িত্বে রয়েছেন সু কিলিয়াং। অর্থাৎ পিপল লিবারেশন আর্মির পদাধিকারীর দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন তিনি। চীনের রাষ্ট্রপতি এর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ এবং ভরসাযোগ্য সু কিলিয়াং। এখনো পর্যন্ত চিনা সেনার পাঁচ থিয়েটার কমান্ডের চারটেতে প্রধান হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। গত ৫ জুন সু কিলিয়াংকে পশ্চিমী থিয়েটার কমান্ডের সেনাপ্রধান হিসেবে পাঠানো হয়েছিল। এর ঠিক পরেই ঘটে গালোয়ান ঘাটিতে হিংসাত্মক ঘটনা। আর ঠিক এখান থেকেই উঠে আসছে পাকিস্তান তথ্য।

জানা যাচ্ছে, লাদাখ সীমান্ত সমস্যা সামাল দিতে সু কিলিয়াংকে দায়িত্বে আনার পিছনে মূল কারণ পাকিস্তান। গতবছর জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার ২০ দিন পর পাক সফরে এসেছিলেন কিলিয়াং। সেই সময় থাকে জামাই আদর করে গড়ে তুলেছিল পাকিস্তান। সেনা সংক্রান্ত একাধিক বিষয় নিয়ে চুক্তিও হয় দুই দেশের মধ্যে। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন তিনি। এর ঠিক পর সাম্প্রতিক এই ঘটনায় অনুমান করা হচ্ছে, রীতিমতো পরিকল্পনা করেই সু কিলিয়াংকে পশ্চিমী থিয়েটার কমান্ডের দায়িত্ব সঁপে দেওয়া হয়েছে। জানা যাচ্ছে শুরুতে লাদাকে যখন ভারতীয় সেনা চিনা সেনাকে যোগ্য জবাব দিতে শুরু করেছিল। চিনের রাষ্ট্রপতির কাছে একটি রিপোর্ট পৌঁছয়। এরপর ওই এলাকার দায়িত্ব দেওয়া হয় সু কিলিয়াংকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here