হাজরায় মমতার উপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত আলমকে মুক্তি দিল আদালত

0
628

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সালটা ১৯৯০ সালের ১৬ আগস্ট। কলকাতার হাজরা মোড়ে এক মিছিলে হাঁটছিলেন তৎকালীন যুব কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মিছিলের হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছিল তৎকালীন শাসকদল সিপিএমের বিরুদ্ধে। শুধু হামলা নয়, লাঠির আঘাতে গুরুতর আহত হয়ে একমাস হাসপাতালে শয্যাশায়ী ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই হামলায় অভিযোগের আঙুল ওঠা তৎকালীন সিপিএম নেতা লালু আলমকে এদিন বেকসুর খালাস করল আদালত।

হাজরা মোড়ে সেই ঘটনায় দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে ধিমে তালে চলা মামলার রায়ে এদিন কিছুটা হলেও স্বস্তিতে সিপিএম। ১৯৯০ সালে এই হামলার ঘটনায় লালু আলম ও তাঁর সঙ্গীদের বিরুদ্ধে। দীর্ঘ দিন ধরে চলা এই মামলায় ১২ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করেছিল পুলিশ। যদিও সরকারের তরফে এই মামলা তুলে নেওয়ার জন্য আবেদন জানানো হয়েছিল আদালতে। কারণ হিসাবে জানানো হয়েছিল অভিযুক্তদের একজন ছাড়া আর কেউ জীবিত নেই। বেশিরভাগ সাক্ষীই মারা গিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী নিজেও চান না এই মামলা চলুক। তাঁর পক্ষেও আদালতে সাক্ষ্য দিতে আসা সম্ভব হচ্ছে না। দীর্ঘ দিন ধরে চলা সেই মামলায় প্রমানের অভাবে অবশেষে মূল অভিযুক্ত লালু আলমকে বেকসুর খালাস করে দিল আদালত।

যদিও এই মামলার গতি প্রকৃতি নিয়ে ধন্দ ছিল অনেক। দীর্ঘ ২৮ বছর কাটার পর প্রথম এই মামলার চার্জসিট গঠন করা হয়। হয় আংশিক সাক্ষ্যদান। কিন্তু অভিযুক্তের আইনজীবীর তরফে মমতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি কখনই ফলে শুরু করা যায়নি মূল বিচার পক্রিয়া। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও আদালতে উপস্থিত হয়ে সাক্ষ্য দিতে পারেননি। ফলে জটিলতা বেড়েছে পদে পদে। পরে ঠিক করা হয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই মামলার সাক্ষ্য দেবেন। কিন্তু পরিকাঠামোর ওভাবে সেটাও হয়ে ওঠেনি। এরপর সরকারের তরফে মামলা তুলে নেওয়ার অনুরোধের পর বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত আলমকে বেজসুর খালাস করে দিল আদালত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here