kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: আর কারও নামের প্রস্তাবই আসেনি। তাই প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়াই বিধানসভার বিরোধী দলনেতা নির্বাচিত হলেন শুভেন্দু অধিকারী। সর্বসম্মতিক্রমে বিরোধী দলনেতা হিসাবে ঘোষিত হল শুভেন্দু অধিকারীর নাম। তাঁর নাম প্রস্তাব করেছিলেন মুকুল রায়। ২২ জন বিধায়ক তাঁকে সমর্থন করেন। বিজেপি তরফ থেকে ঘোষণা করা বিধানসভার বিরোধী দলনেতা হলেন শুভেন্দু।

তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগেরবার বিরোধীদলের আসনে থাকো কংগ্রেস এবার বিধানসভায় যাওয়ার ছাড়পত্র জোগাড় করতে পারেনি। ৭৭টি আসন নিয়ে বিরোধী দল হিসেবে যোগ্যতা অর্জন করেছে বিজেপি। বিধায়ক হিসেবে এই দলে অনেকেই নবাগত। ফলে বিরোধী দলনেতার আসনে কোন নেতাকে বিজেপি বসাবে, তা নিয়ে অনেক জল্পনা চলে।

​বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসা তৃণমূলকে চাপে রাখার জন্য যতটা আসন সংখ্যা দরকার, ততটা নেই বিজেপির হাতে। একইসঙ্গে মমতাকে ‘ব্যতিব্যস্ত’ করে রাখার জন্য যে নেতার দরকার তেমন নেতাও নেই বিজেপিতে। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারী প্রথম থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সমানে টক্কর দিয়ে চলেছেন। তার সেই টক্কর দেখা গিয়েছে নন্দীগ্রামের ভোটেও। সেখানে একবারে ফটোফিনিশে জিতে যান শুভেন্দু অধিকারী।

​মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘চোখে চোখ রেখে’ কথা বলতে পারা নেতা শুভেন্দু অধিকারী তাই বিজেপির বিরোধী দলনেতা হিসেবে ‘ফাস্ট চয়েস’ বলে মনে করা হয়। দলে আলোচনার পর আজ সোমবার বিরোধী দলনেতা হিসেবে শুভেন্দুর নাম ঘোষণা হল। মুকুল রায় ব্যসেক কারণে বিরোধী দলনেতা হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here