bengali news

 

মহানগর ডেস্ক: উত্তরবঙ্গের শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ জন নিহত হওয়ার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে কমিশনে একগুচ্ছ দাবি-দাওয়া লিখিত আকারে জমা দিল সিপিএম৷ কমিশনের অফিস থেকে বেরিয়ে বর্ষীয়ান সিপিএম নেতা রবীন দেব সাংবাদিকদের বলেন, আজকের শীতলকুচির ঘটনার নিন্দা জানানোর ভাষা নেই৷ খুবই দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে আজ৷ আমরা কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলি চালনার তীব্র নিন্দা করছি৷ যে কোনও মৃত্যুই দুঃখজনক এবং নিন্দাজনক৷ বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে কমিশনের কাছে দাবি জানাল সিপিএম৷ রবীনবাবুর কথায়, কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের শীর্ষ ব্যক্তিত্ব ও নেতৃত্ব যেভাবে প্রতিদিন ন্যক্করজনক ভাষায় উসকানি দিচ্ছেন, কুরুচিকর ভাষায় বিষোদ্গার করছেন, তা অতীব জঘন্য৷

কমিশনকে বামেরা আজ এও জানিয়েছে, নতুন করে কোনও রকম প্ররোচনা যেন তৈরি না হয়, সেই প্রেক্ষাপট যেন সৃষ্টি না হয়৷ তা দেখার জন্য কমিশনকে আবেদন জানানো হয়েছে৷ রবীন দেবের কথায়, পরিবেশ-পরিস্থিতি সবকিছু বিবেচনা করে কমিশন যথোচিত পদক্ষেপ করবে বলে আমরা আশাবাদী৷ তিইন এও বলেন, নির্বাচন চলাকালে প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী, কেন্দ্রীয়মন্ত্রী এবং তৃণমূল-বিজেপি নেতাদের ভাষা ও ভাষণে লাগাম পরানো হোক৷ তাদের আচরণ ও ভাষণকে সেন্সর করুক কমিশন৷ না হলে এই ভোটকে কেন্দ্র করে ফলাফল যা হবার তাই হবে, কিন্তু বাংলার সংস্কৃতি-ঐতিহ্য ভূলুণ্ঠিত হচ্ছে৷ বাংলা রাজনৈতিকভাবে অনেক পিছিয়ে যাচ্ছে বলে আক্ষেপ করেন রবীন দেব৷ তিনি এও বলেন, একেবারে গুলি না চালিয়ে তার আগে আরও অনেক হালকা পদ্ধতি আছে৷ লাঠি চার্জ করতে পারত৷ কিন্তু তা না করে সরাসরি গুলি চালিয়ে ৪ জনকে মেরে ফেলা একেবারেই উচিত হয়নি৷ নির্বাচন কমিশন কেন গুলি চালানোর নির্দেশ দিলেন, এর নেপথ্যে কী রহস্য লুকিয়ে আছে, কারও উসকানি বা হুমকি-ধমকি আছে কিনা, এ সবকিছুই খতিয়ে দেখে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নিতে বামফ্রন্টের তরফে নির্বাচন কমিশনকে আজ আহ্বান জানানো হয়েছে বলেন রবীন দেব৷   

তাঁর কথায়, মাথাভাঙার শীতলকুচিতে আজ চরম অপ্রীতিকর ও জঘন্য হিংসাত্মক ঘটনা ঘটেছে৷ তাছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় আজকের চতুর্থদফার ভোটে আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে৷ কমিশনের নিষেধ সত্ত্বেও অনেক জায়গায় বাইকবাহিনী তাণ্ডব চালিয়েছে, ডজন খানেক গাড়ির কনভয় নিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করেছেন অনেক প্রার্থী৷ পাশাপাশি শীতলকুচির ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে কমিশনকে আবেদন জানিয়েছেন তাঁরা৷ ভোটের দিন হেভিওয়েট নেতাদের টেলিভিশনে লাইভ সম্প্রচার বন্ধ করার কথাও কমিশনকে বলা হয়েছে। শীতলকুচির ঘটনায় অভিযুক্তদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়েছে। তৃণমূল ও বিজেপি নেতাদের ভাষণভঙ্গী এবং উসকানিমূলক আচরণের ওপর কড়া নজরে রাখতে কমিশনকে বলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here