মহানগর ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরের মন্তব্যকে কেন্দ্র করে এবার উত্তপ্ত হল লোকসভা। বিরোধীদের হট্টগোল এমন পর্যায়ে পৌঁছে যায় যে বাদল অধিবেশন কিছুক্ষণের জন্য মুলতুবি করতে হয় স্পিকারকে।

ঘটনার সূত্রপাত হয় এদিন অধিবেশন চলাকালীন। পিএম কেয়ারস ফান্ড নিয়ে অস্বচ্ছতার অভিযোগ বিরোধীরা শুরু থেকেই তুলে এসেছেন, যা নিয়ে সাফাই দিচ্ছিলেন দিল্লি দাঙ্গার আগে ‘গোলি মারো’ স্লোগান তোলা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ। সেই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে গিয়ে নেহেরু ও গান্ধী পরিবার নিয়ে বেশ কিছু মন্তব্য করেন যা কংগ্রেস সাংসদদের আপত্তিকর বলে মনে হয়। পাল্টা এক সাংসদ অনুরাগকে ‘ছোকড়া’ (ছেলেমানুষ) বলে বসেন। এই নিয়ে বিবাদ বাড়তে থাকায় অধিবেশন মুলতুবি করা হয়। স্পিকারের বিরুদ্ধে পক্ষপাতের অভিযোগও তোলেন বিরোধীরা।

পিএম কেয়ারস ফান্ড নিয়ে কথা বলতে গিয়ে অনুরাগ বলেন, ‘হাই কোর্ট থেকে সুপ্রিম কোর্ট, প্রত্যেক আদালত পিএম কেয়ারস ফান্ডকে ছাড়পত্র দিয়েছে। ছোট ছোট বাচ্চারা নিজেদের পিগি ব্যাঙ্ক (লক্ষ্মীর ভাঁড়) থেকে এতে অনুদান দিয়েছে। অথচ নেহরুজি এমন একটা ফান্ড বানিয়েছিলেন যার রেজিস্ট্রেশন আজ অব্দি হয়নি। কংগ্রেস শুধুমাত্র নিজের পরিবারের ফায়দার জন্য এটা বানিয়েছিল। যার চেয়ারম্যান সনিয়া গান্ধীকে বানিয়ে দেওয়া হয়। তদন্ত করে দেখলেই সব দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে যাবে।’

অনুরাগের এই মন্তব্যের জেরে বিরোধীরা, বিশেষত কংগ্রেস সাংসদরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। লোকসভা কংগ্রেস দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে বলতে শোনা যায়, ‘হিমাচলের এই ছেলেটা কে? নেহেরু এই বিতর্কে কোথা থেলে এলেন? আমরা কি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নাম টেনে এনেছি।’ এরপরই অনুরাগকে ‘ছোকড়া’ বলে খোঁচা দেন অধীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here