ডেস্ক: কিছুদিন আগে সংসদের মধ্যে তাঁর হাসিকে কটাক্ষ করেছিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার সংসদের মধ্যেই তাঁকে নিজের ওজন কমিয়ে দলের ওজন বাড়ানোর পরামর্শ দিলেন রাজ্যসভার স্পিকার তথা ভারতের উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু। যদিও রাজ্যসভার স্পিকারের এই ছোট্ট টিপ্পনির পাল্টা উত্তরও দিতে ছাড়েননি রেণুকা দেবী।

গত বুধবার ছিল রাজ্যসভার ৬০ জন সাংসদের মেয়াদ শেষের দিন। সেই তালিকায় ছিলেন কংগ্রেস সাংসদ রেণুকা চৌধুরীও। বিদায়কালে নিজের শেষ ভাষণে রেণুকা দেবী বলেন, ‘বেঙ্কাইয়া নাইডু আমাকে তখন থেকে চেনেন যখন আমার ওজন অনেকটাই কম ছিল। বর্তমানে অনেকেই আমার ওজন নিয়ে বেশ চিন্তিত কিন্তু রাজনীতিতে থাকতে হলে আমায় তো ওজন(প্রভাব) দেখাতেই হবে।’ ঠিক তারপরেই রেণুকা দেবীকে ছোট্ট টিপ্পনি কাটেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। তিনি বলেন, ‘আমি আপনাকে ছোট্ট একটা পরামর্শ দেই, নিজের ওজনটা কমান এবং দলের ওজন বাড়ান।’ অবশ্য পাল্টা দিতে ছাড়েননি রেণুকা চৌধুরীও। তিনি বলেন, ‘স্যার কংগ্রেসের ওজন যথেষ্ট আছে। সেখানে আর ওজনের দরকার পড়বে বলে মনে হয় না।’ তাঁদের এহেন কথোপকথনে হাসির রোল ওঠে সংসদে।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারি মাসেই রাজ্যসভায় ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রীর কোনও এক বক্তব্যে হেসে ওঠেন রেনুকা চৌধুরী। রেনুকা দেবীর হাসি শুনে তাঁকে থামানোর চেষ্টা করেন উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু। তখন উপরাষ্ট্রপতিকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ”সভাপতি মহোদয় আমি আপনাকে অনুরোধ করবো রেনুকাদেবীকে কিচ্ছু বলবেন না। রামায়ণ সিরিয়ালের পর এরম হাসি শোনার সৌভাগ্য আমার এই প্রথম হল।” প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের পরই জোরে জোরে হেসে ওঠেন বিজেপির সাংসদেরা। বুধবার রেণুকা দেবীর ভাষণে উঠে আসে এতদিন তাঁর সংসদে কাটানো নানা অভিজ্ঞতা ও স্মৃতির সঙ্গে এই প্রসঙ্গও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here