তরুণীর পেট থেকে বার হল কিলো কিলো গয়না, শোরগোল পড়ল রামপুরহাটে

0
17107
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, রামপুরহাট: আর পাঁচটা রোগীর মতই মেয়েটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল পেটে ব্যাথা নিয়ে। অস্বাভাবিক বলতে খালি মেয়েটি মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। ডাক্তাররাও ভেবেছিল টিউমার বা অ্যাপিন্ডিসাইটিজ থেকেই হয়ত পেটে ব্যাথা হচ্ছে। তার জেরে তারা অপারেশন করার সিদ্ধান্ত নেন। তার আগে অবশ্য নিয়ম মেনে এক্সরেও হয়েছিল। সেই এক্স রে রিপোর্ট দেখে ধন্ধে পড়েছিলেন চিকিৎসকেরা। কারন তাতে ওই তরুণীর পেটের ভেতর ধাতব জিনিস থাকার ছবি ধরে পড়েছিল। ডাক্তাররা সেই তরুণীর অপারেশন করতে গিয়েই নিজেরাই কার্যত ভিরমি খাওয়ার মুখে পড়লেন। পেট কাটতেই বার হল গাদা গুচ্ছের গয়না। তাও দামী কোন ধাতুর নয়, মামুলি এমিটেশনের। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

জানা গিয়েছে, বীরভূম জেলার রামপুরহাট মহকুমার মাড়গ্রাম থানার বিনোদপুর গ্রামের বাসিন্দা রুনি খাতুন নামে ওই তরুণী মানসিক ভারসাম্যহীন। দিন পনেরো আগে পেটে ব্যাথার কারণে সে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়। বুধবার সেখানেই তার পেটে অস্ত্রপচার করেন হাসপাতালের চিকিৎসক সিদ্ধার্থ বিশ্বাস। প্রায় দেড় ঘন্টা অস্ত্রোপচার করতে সময় লাগে। তারপরেই পেট থেকে বেরিয়ে আসে প্রচুর পরিমাণ এমিটেশন গয়না ও কয়েন। তার মধ্যে যেমন গলার হার থেকে চুড়ি, কানের দুল রয়েছে তেমনি রয়েছে ৫ টাকা, ২ টাকা আর ১০ টাকার কয়েন। মিলেছে গলার চেন, নুপূর, আংটি, মঙ্গলসূত্র ও একটি আস্ত হাতঘড়িও।

kolkata bengali news

রুনি খাতুনের পরিবারের দাবি, রুনির দাদার এমিটেশনের গয়নার দোকান রয়েছে। সেখান থেকে প্রায়শই গয়না হাফিস হয়ে যেত। তারা অনেক খুঁজেও তার কোন কূলকিনারা করতে পারেননি। এখন তাদের মনে হচ্ছে রুনিই সেই গয়না খেয়ে ফেলত। এদিন রুমির পেট থেকে প্রায় ২ কেজির জিনিস বার করেছেন ডাক্তাররা। স্বাভাবিক ভাবেই এহেন ঘটনায় রীতিমত শোরগোল পড়েছে গোটা জেলা জুড়েই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here