ডেস্ক: রাজ্যে একের পর এক সভা করে চলেছে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। এরই মাঝে দমদমের কামারহাটি অঞ্চলের একটি ঘটনা তীব্রভাবে উত্তাপ সৃষ্টি করেছে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে। ওই এলাকায় বেশকিছু তৃণমূলের পতাকা ছিঁড়ে নর্দমায় ফেলে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। এই ঘটনার কথা জানতে পেরেই ওখানে যান তৃণমূল নেতা মদন মিত্র। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে তিনি মন্তব্য করেন, ওদের পিষে মেরে দেওয়ার ক্ষমতা আছে তৃণমূল কংগ্রেসের!

পতাকা ছেঁড়া এবং সেগুলি নর্দমায় পড়ে থাকার ঘটনায় মদন মিত্র বলেন,

তৃণমূলের পতাকা ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে, পাশাপাশি কিছু দুষ্কৃতী মন্দিরে এসেও হামলা করে। এগুলি ইচ্ছা করে হিংসা ছড়ানোর জন্য করা হচ্ছে। কামারহাটিতে হিংসা ছড়িয়ে দিয়ে বাংলায় পরিস্থিতি খারাপ করতে চাইছে তারা।

পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, শবেবরাত উপলক্ষ্যে এলাকায় পৌরসভা থেকে আলো লাগানো হয়েছিল, সেগুলিও ভেঙে দিয়েছে দুষ্কৃতীরা।

ওরা বুঝতে পারছে না, তৃণমূল যদি মনে করে ওদের ছারপোকার মতো পিষে, টিপে মেরে ফেলতে পারে! সেই ক্ষমতা তৃণমূলের রয়েছে, কিন্তু সরকার হিংসায় বিশ্বাসী নয়, গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। তাই এই ধরনের কোনও কাজ তৃণমূল করবে না।

কামারহাটি এলাকার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই প্রচণ্ড উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী। মদন মিত্র বলেন, এই ধরনের আচরণ মানুষ সহ্য করবে না, তৃণমূল প্রতিবাদ না করলেও মানুষ প্রতিবাদ করবে। তবে পতাকা ছেঁড়ার ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনে যাবেন বলে জানিয়েছেন মদন মিত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here