ডেস্ক: সারদাকাণ্ডে হাজতবাস, তারপর জামিন, ফের নতুন করে সাধারণ মানুষের মধ্যে নিজেকে ফিরে পাওয়া। সবকিছু মিলিয়ে তৃণমূল নেতৃত্বে এখন অনেকটাই পিছনের সারিতে রয়েছেন মদন মিত্র। স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসে সাধারণ জনগণের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে সোশ্যাল নেটওয়ার্কেও মাঝেমধ্যেই লাইভ চলে আসেন কথা বলতে। এভাবেই আপাতত দিন কাটছে মদনের। এক সময় রাজ্যের প্রথম সারির নেতাই এখন পিছনের সারিতে চলে আসায় অনেকের মনেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে দিয়েছে যে, মুকুলের দেখানো পথেই কি হাঁটার পরিকল্পনা করছেন মদন? উত্তরটা তিনি নিজেই অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন ইতিমধ্যে।

সম্প্রতি নিজের ফেসবুক পেজে লাইভ এসেছিলেন মদন। অনুগামীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিতে এবং সাধারণ মানুষের সঙ্গেও আলাপচারিতা সেরে নিতে। বিভিন্ন মহলে যেমন কানাঘুষো শোনা যাচ্ছিল ফেসবুক লাইভেও একই প্রশ্ন ছুঁড়ে দেওয়া হল মদনকে। কিন্তু এই প্রশ্নের উত্তরে মদন যা বললেন তাতে রীতিমতো সকল জল্পনায় জল পড়ে গেল। বিজেপিতে যাওয়ার প্রশ্নের উত্তরে মদন সোজাসুজি বলেন, ‘কেন আমি বিজেপিতে যাব? আমার কী এমন অসহায় অবস্থা হয়েছে যে আমায় বিজেপিতে যোগ দিতে হবে?’

মুকুল রায়ের দেখানো পথ যে তিনি অনুসরণ করবেন না তা স্পষ্ট করে মদন আরও বলেন, ‘যদি কারও পথ অনুসরণ করতে হয় তবে বিদ্বজন-মনিষীদের পথ, অন্ধকারে হারিয়ে যাওয়া নবকুমার-কপালকুণ্ডলার পথ অনুসরণ করব। কিন্তু যাঁরা আমাকে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন করল, আমার রাজনৈতিক জীবনে কালি লাগালো, অপমান করল, মিথ্যে প্রচার করল, আমার জীবনের পাতা থেকে ২২ মাস ছিঁড়ে ফেলে দিল, তাঁদের দলে কেন যাব?’ এখানেই না থেকে মদন আরও বলেন, ”২২ মাস আমি যন্ত্রণা নিয়ে কাটিয়েছি। আমার সমর্থক আমার পরিবার সকলের উপর দিয়ে ঝড় বয়ে গিয়েছে। সকল আনন্দ শেষ হয়ে গিয়েছিল। আমি এক আনার যোগ্য হলেও তৃণমূল আমায় ষোলো আনা দিয়েছে। তাই আমার বুক চিরে দেখলেও একটাই নাম দেখা যাবে, সেটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here