news bengali national

মহানগর ওয়েবডেস্ক: শরীরে জ্বর ছিল, সঙ্গে নিঃশ্বাস নিতেও বেশ কষ্ট হচ্ছিল। অবিলম্বে আইসিইউ-তে ঢোকালে প্রাণ বেঁচেও যেত। কিন্তু আইসিইউ-র চাবিটাই খুঁজে পেলেন না হাসপাতালের ডাক্তার-নার্সরা। ফলে করোনার উপসর্গ নিয়ে একপ্রকার বিনা চিকিৎসাতেই মারা গেলেন বছর ৫৫-র এক প্রৌঢ়া। মর্মান্তিক ঘটনাটি উজ্জ্বয়ন জেলার। একটি বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আইসিইউ-র চাবি কোথায় রেখেছিল সেটাই ভুলে যাওয়ায় বেঘোরে প্রাণ খোয়াতে হল ওই মহিলাকে।

গায়ে সামান্য জ্বর, শ্বাসকষ্ট, এবং উচ্চ রক্তচাপের উপসর্গ নিয়ে উজ্জ্বয়ন জেলা হাসপাতালে বৃহস্পতিবার রাতেই ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। সেখানকার চিকিৎসাকর্মীরা উপসর্গ অনুযায়ী চিকিৎসা চালাচ্ছিলেন, কিন্তু চিকিৎসায় সাড়া দেওয়ার বদলে ক্রমশ আরও খারাপ হচ্ছিল ওই মহিলার শারীরিক পরিস্থিতি। শেষ পর্যন্ত জেলা হাসপাতালের চিকিৎসকরা কোভিড ১৯-র পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে মাধ্বনগরের এক করোনা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু ওই মহিলার শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হওয়ায় অন্য একটি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। যেখানকার চিকিৎসা ব্যবস্থা নাকি অনেকটাই উন্নত ও আধুনিক। কিন্তু গুরুতর অবস্থায় ওই রোগীকে নিয়ে হাসপাতালে পৌঁছনর পর জানা যায় যে আইসিইউ-তে তালা লাগানো। যার কাছে চাবি থাকে তিনিও সেই মুহূর্তে হাসপাতালে নেই।

আর কোনও উপায় না পেয়ে আইসিইউ-র তালা ভাঙার চেষ্টা করা। ততক্ষণে ওই মহিলার অবস্থা আরও খারাপ হয়ে যায়। কয়েক ঘণ্টার চেষ্টার পর তালা ভাঙা হলেও ওই রোগীকে আর বাঁচাতে পারেননি চিকিৎসকরা। কেন এই ধরনের ঘটনা ঘটল তা তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন উজ্জ্বয়নের মেডিক্যাল অফিসার। ওই বেসরকারি হাসপাতালের দুই চিকিৎসককেও ইতিমধ্যে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত যদিও ওই মহিলার টেস্টের রিপোর্ট আসেনি। ইতিমধ্যেই মধ্যপ্রদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১০০ পেরিয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here