মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনায় ধুঁকছে মহারাষ্ট্র। হু হু করে সংক্রমণ বাড়ছে। তবে এবার আর লকডাউন চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। গতকালই নয়া নির্দেশিকায় সেটা স্পষ্ট করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এবার মহারাষ্ট্র সরকারও সাফ করে দিল, করোনকে সঙ্গে নিয়েই স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে হবে। কেন্দ্রের তরফে গতকালই স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছিল, কী কী ক্ষেত্রে নিয়ম কানুন শিথিল করা হবে সেই সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারকেই নিতে হবে। সেই মতো এদিন মহারাষ্ট্র সরকার ‘মিশন বিগিন এগেইন’ শুরু করে।

মহারাষ্ট্র সরকারের ‘মিশন বিগিন এগেইন’ শুরু হচ্ছে আগামী ৩ জুন থেকে। যেখানে আউটডোরে সাইকেলিং, জগিং করায় ছাড় দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সি বিচ, পার্ক, খেলার মাঠ এবং বাগান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এগুলি ভোর ৫টা থেকে সন্ধে ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে ৩ জুন থেকে শুরু হতে চলা প্রথম ধাপে কোনও গ্রুপ বা জমায়েত বরদাস্ত করা হবে না। বাচ্চাদের বের হওয়ায় অনুমতি দেওয়া হলেও বাড়ির বড়দের তাদের সঙ্গে থাকা বাধ্যতামূলক।

এছাড়াও বাড়িতে কাজের জন্য নানা ধরনের মিস্ত্রি ও কাজের মানুষের যাতায়াতে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকারি দপ্তরগুলিও শুরু করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে তবে ১৫ শতাংশ কর্মীদের উপস্থিতি নিয়ে। ৫ জুন পর্যন্ত শপিং মল ও মার্কেট কমপ্লেক্স ছাড়া সমস্ত দোকান সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খলা যাবে। কেনাকাটার জন্য সকলকে সাইকেল ব্যবহার করতে বা পায়ে হেঁটে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ট্যাক্সি বা অটোরিক্সাও পরিষেবা দেওয়া শুরু করবে তবে তা কেবল জরুরি ভিত্তিতে এবং সর্বাধিক দুজন যাত্রী নিয়ে। এই সময়ের মধ্যে ১০ শতাংশ কর্মী সহ বেসরকারি অফিস খোলা যাবে।

অন্যদিকে ক্রমশ স্বাভাবিক জনজীবন ফিরিয়ে আনার চেষ্টা শুরু হলেও বেশ কিছু ক্ষেত্রে এখনই ছাড় দেওয়া হচ্ছে না। যেমন স্কুল, কলেজ বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেওয়া হয়নি। মেট্রো রেল, সিনেমা হল, জিম, সুইমিং পুল, প্রেক্ষাগৃহ, সেলুন, পার্লার, হোটেল, রেস্তোরাঁ সব আপাত বন্ধই রাখা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here