নিজস্ব প্রতিবেদক, সিউড়ি: অপহরণ করে আটকে রেখে দিনের পর দিন এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল নিষিদ্ধ পল্লীর দালালের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের সিউড়ি থানা এলাকায়। ঘটনায় নাবালিকার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তের এক বন্ধুকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, সিউড়ি কেন্দুয়া দাসপাড়ার ১৩ বয়সি এক নাবালিকাকে অপহরণ করার পর লাগাতার ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠে শেখ মিঠু নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে। মিঠু সিউড়ির রেল স্টেশন লাগোয়া নিষিদ্ধ পল্লীতে দালাল হিসেবে পরিচিত। গত বুধবার ওই নাবালিকা এলাকায় এক এনজিও পরিচালিত স্কুলের যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়ে যায় বলে দাবি পরিবারের। এরপর গত শুক্রবার নাবালিকাকে এলাকার একটি ঘরে আটকে রেখে পালিয়ে যায় মিঠু। সেখান থেকে উদ্ধার হওয়ার পর নাবালিকা তার পরিবার ও প্রতিবেশীদের জানায়, মিঠু তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে পাথরচাপুড়ি এলাকায় নিয়ে যায়। সেখান থেকে শের আলী নামে এক বন্ধুর আত্মীয়র বাড়িতে আটকে রাখে এবং তার ওপর পাশবিক অত্যাচার চালায় অভিযুক্ত।

নাবালিকার কাছ থেকে সমস্ত ঘটনা শোনার পর পরিবার ও প্রতিবেশীরা সিউড়ি থানায় আসে। লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় পরিবারের পক্ষ থেকে, অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত মিঠুর বন্ধু শের আলী নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে সিউড়ি থানার পুলিশ। পলাতক সেখ মিঠু। নাবালিকা বর্তমানে সিউড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ঘটনায় অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তির দাবি করছে নাবালিকার প্রতিবেশীরা। নাবালিকার ঠাকুমা জানিয়েছেন পড়তে যাওয়ার পর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যায় তারপর দুদিন পর বাড়ি ফিরে এসে নাতনি সব ঘটনা খুলে বলে আমাদের মিঠুর নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। সিউড়ি থানার আইসি দেবাশীষ পান্ডা জানিয়েছেন ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ও তদন্ত করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here