news bengali kolkata

 

Highlights

  • জেলা রাজনৈতিক মহলের দাবি, গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব
  • কার্যকরী ব্লক সভাপতি দাবি করেন, বিরোধীদের উদ্দেশে
  •  তৃণমূল নেতার দাবি, তাঁকে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক, মালদা: গৌড়বঙ্গ সফরে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ বুধবার পুরাতন মালদার ছোটো সুজাপুর মঞ্চ থেকে জেলার প্রথম সারির নেতাদের কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি৷ এরই মাঝে মঙ্গলবার চাঁচলে সোশ্যাল মিডিয়ায় সামনে এসেছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব৷ ব্লক তৃণমূল কার্যকরী সভাপতি সোশ্যাল সাইটে লেখেন, তাঁকে গুলি করে মেরে ফেলতে। তবে এদিন সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো কোনও মন্তব্য করেনি৷ তবে এই ঘটনার জেরে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব বেশ চিন্তিত৷

উল্লেখ্য, চাঁচল ব্লক তৃণমূল কার্যকরী সভাপতি বাবু সরকার ফেসবুকে নাম না করে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করেন, আয় আমাকে গুলি করে মেরে ফেল৷ তোদের অনেক অত্যাচার সহ্য করলাম৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় এই মন্তব্য নজরে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে চাঁচলে৷ যদিও সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিষয়টি গোষ্ঠীকোন্দল বলে মানতে চাননি ব্লক তৃণমূল কার্যকরী সভাপতি৷ তাঁকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বিরোধীদের উদ্দেশ্যে বলে মন্তব্য করেছেন৷ জেলায় মুখ্যমন্ত্রী থাকার কারণেই ব্লক তৃণমূল কার্যকরী সভাপতি বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলতে চাননি বলে মনে করেছেন জেলার রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷

তৃণমূলের ব্লক কার্যকরী সভাপতি বাবু সরকার বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে কয়েকজন তাঁকে প্রাণে মারার হুমকি দিচ্ছিল৷ মঙ্গলবার রাতে তাঁদের কথা মতো তিনি চাঁচল কলেজ মাঠে যান৷ কিন্তু সেখানে কেউ ছিল না৷ এরপর তিনি সেই পোস্ট করেন৷ তাঁকে দলের কয়েকজন এসে ফিরিয়ে নিয়ে যান, বলেও দাবি করেন তিনি৷

জেলার গোষ্ঠীকোন্দল সম্পর্কে খুটিনাটি জানেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ বুধবারের কর্মীসভার বক্তব্যে তা পরিষ্কার৷ গোষ্ঠীকোন্দল এড়াতে তিনি দলের সকলের মধ্যে দায়িত্ব ভাগ করে দিয়েছেন৷ এত কিছুর পরেও কি তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল এড়ানো যাবে? আপাতত এই প্রশ্নের উত্তরের দিকে তাকিয়ে জেলাবাসী৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here