kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, মুর্শিদাবাদ: বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বেলডাঙায় নববর্ষের দিন নির্বাচনী প্রচারে  বিজেপির পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর আক্রমণের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল কংগ্রেস৷ অধীর তো ছিলেনই, বাদ যাননি জঙ্গিপুরের কংগ্রেস প্রার্থী প্রণব পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়৷ জঙ্গিপুরে এই কংগ্রেস প্রার্থী আরএসএস-এর মদতে লড়ছে, চোপড়ায় এমন অভিযোগই এনেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এদিন তারই পুনরাবৃত্তি ঘটল৷ আক্রমণের সুরে তিনি বললেন, প্রণব মুখোপাধ্যায় নাগপুরে আরএসএস-এর সদর দফতরে গিয়েছিলেন। তাই প্রণববাবুর ছেলেকে জঙ্গিপুরের লড়তে আরএসএসই মদত দিচ্ছে৷ চোপড়ায় শুধুই অভিজিৎকে টেনে এনে বিঁধলেও এবার প্রণব মুখোপাধ্যায়কে নিশানা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এদিন প্রণব পুত্র অভিজিৎ আর অধীরকে এক সারিতে রেখে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এক দিকে বাম অন্য দিকে রাম। মাঝে জুটেছে শ্যাম। দুই দিকে দুই কলা গাছ, মধ্যিখানে অধীররাজ।’ মমতার বিস্ফোরক অভিযোগ, বাংলায় জঙ্গিপুর ও বহরমপুর এই দুটি জায়গায় কংগ্রেসের হয়ে কাজ করছে আরএসএস৷

বছরের শুরুতে বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বেলডাঙায় অপূর্ব সরকারের সমর্থনে প্রচারে ঝড় তোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এদিন অধীর গড়ে গ্রীষ্মের প্রখর দাবদাহেই অভিজিতের পাশাপাশি অধীর বিরোধী সুর চড়ল মুখ্যমন্ত্রীর গলায়৷ সুযোগ পেলেই মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর সরকারকে আক্রমণ করতে কখনই ছাড়েননি বহরমপুরের বিদায়ী সাংসদ৷ এবার বেলডাঙার সভা থেকে সেই আক্রমণের জবাব একে একে ফিরিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ রাজনৈতিক জীবন থেকে ব্যক্তিগত জীবন আক্রমণের তালিকায় বাদ গেল না কোনও কিছুই৷ ২৩ এপ্রিল তৃতীয় দফায় নির্বাচন হবে মুর্শিদাবাদে৷ এক সময়ের অধীর ঘনিষ্ঠ অপূর্ব সরকারের সমর্থনে ভোট প্রচারে এসে  মুখ্যমন্ত্রী এদিন চাঁচাছোলা ভাষায় বিঁধলেন অধীরকে৷ বিগত দিনে মুখ্যমন্ত্রীকে বহরমপুর থেকে দাঁড়িয়ে জিতে দেখাতে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছিলেন অধীর চৌধুরী৷ একবার নয় একাধিকবার এই চ্যালেঞ্জ জানাতে দেখা গিয়েছেল অধীরকে৷ এদিন বহরমপুরের মাটিতে এসে বহরমপুরের কংগ্রেস প্রার্থীর বিরুদ্ধে মুর্শিদাবাদে ‘ঘৃণ্য রাজনীতি’ করার অভিযোগ তুললেন মুখ্যমন্ত্রী৷

বাংলার রাজনীতিতে মুর্শিদাবাদ জেলা এখনও ‘অধীরের গড়’ বলেই খ্যাত। এদিন অধীরকে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আমাকে বেশি ঘাঁটাবেন না, আমি সব জানি, আমাকে প্যান্ডোরার বক্স খুলতে বাধ্য করবেন না৷ এখানেই থামেননি, প্রশ্ন তোলেন, বহরমপুরের সাংসদ খুব তো বড়ে বড়ো কথা বলেন, সারা বছর কোথায় থাকেন? পুরোনো অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, পিছন থেকে আরএসএসকে সমর্থন করছেন অধীর চৌধুরী৷ কংগ্রেস সিপিএম ও বিজেপির সঙ্গে আঁতাত করছে বলেও এদিন অধীরের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷ এটাই যে তাঁর দল ছাড়ার মুখ্য কারণ ছিল তাও জনসভা থেকে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী৷

এদিন অধীর চৌধুরীর ব্যাক্তিগত জীবনকেও বিঁধতে ছাড়েননি তৃণমূল সুপ্রিমো৷ বলেন, স্ত্রী মারা গিয়েছে, কিন্তু সেই কথা হলফনামায় উল্লেখ করেনি৷ ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে মুর্শিবাদাবাদের তিনটি আসনের মধ্যে কংগ্রেস পায় দুটি ও বামেরা একটি৷ শূণ্য পায় তৃণমূল৷ ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে মুর্শিদাবাদ দখলের চেষ্টায় মরিয়া তৃণমূল৷ তাই তো দিদি আগে থাকতেই বহরমপুরের জনসভা থেকে মানুষের উদ্দেশে জানালেন অপূর্বকে জেতালে যা চাইবেন সব দেব৷ তবে দিদির প্রতিশ্রতি কতটা ফলপ্রসূ হবে, মুর্শিদাবাদ কার দখলে যাবে সেই রহস্যের উদঘাটন হবে ২৩ মে ফলপ্রকাশের দিন৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here