kolkata bengali news

ডেস্ক: রাজ্যে দ্বিতীয় দফা নির্বাচন শেষ৷ বিক্ষিপ্ত নানান অশান্তির মধ্যে দিয়ে মিটেছে দ্বিতীয় দফার ভোট৷ এখনও বাকি পাঁচ দফা নির্বাচন৷ তাই দিল্লিতে মোদী সরকারকে টলাতে কোনও কসুর করতে চাইছে না তৃণমূল৷ দলের সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তরবঙ্গে গিয়ে একের পর এক প্রচারে ঝড় তুলে দেশ থেকে মোদী হটাও-এর ডাক দিয়েছেন৷ বিগত কয়েক দিনে উত্তরবঙ্গে একাধিক প্রচার জনসভা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ যেখানেই গেছেন জনগণের উদ্দেশ্যে একটাই বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী, যে সরকার দেশকে ভাগ করতে চায়, ধর্মকে ভাগ করতে চায় আর সেই সরকারকে ফিরিয়ে এনে একটি ভোটও নষ্ট করবেন না৷ প্রত্যেকটি ভোট খুবই মূল্যবান, বিজেপিকে সেই ভোট দিয়ে ভুল জায়গায় গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করবেন না৷ বৃহস্পতিবার মালদায় তিনটি সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ দেশে এনআসরসি চালু করলে জনগণ তাঁকে এনবিসি অর্থাত ন্যাশনাল বিদায়ী সার্টিফিকেট দেবে এমন চ্যালেঞ্জই ছুঁড়েছে মালদার জনসভা থেকে৷ আর এরপরেই হেলিকপ্টারে করে শুক্রবার বালুরঘাটে এসে তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের সমর্থনে সভা করেন তিনি৷ এদিন চেনা ঢঙেই মোদীকে একাধিক ইস্যুতে বিঁধে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ আরও একবার বিজেপিকে ভোট না দেওয়ার জন্য মানুষের কাছে আবেদন জানান তিনি৷ বিজেপি ভোট দিয়ে ভোট নষ্ট করার অনুরোধ জানান জনগণের কাছে৷ বলেন ‘মোদীবাবু ক্ষমতায় এলে আর স্বাধীনতা থাকবে না, সে সব অধিকার কেড়ে নেবে৷’  পংক্তির লাইন তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘ছেলে ঘুমোলে পাড়া জুড়োলো গব্বর এল দেশে, সব অধিকার কেড়ে নিলে বাঁচব আমি কিসে৷’

এই প্রথমবার নয়, এ যাবত মোদীকে গব্বর, চাওয়ালা, হিটলার এমন একাধিক নামে চিহ্নিত করে আক্রমণ শানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, এদিনও তার ব্যতিক্রম হয়নি৷ এদিন জোট বেঁধে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করার আহ্বান জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এতদিন বলতেন চাওয়ালা চৌকিদার হয়ে গিয়েছে, এদিন বললেন চাওয়ালা যে চাওয়ালা, তা ভুলে গিয়েছে৷ এখানেই থামেননি এদিন মুখ্যমন্ত্রীর আক্রমণে নতুন সংযোজন ‘চাওয়ালার কেটলি এখন অর্থমন্ত্রী৷’ এতদিন মোদীর পাশাপাশি অমিত শাহকে বিঁধতেন, এবার তার নিশানা থেকে বাদ গেলেন না অর্থমন্ত্রীও৷ এরপরেই মুখমন্ত্রী বলেন, রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ, তামিলনাড়ুতে গোল্লা পেয়েছে, বাংলাতেও গোল্লা পাবে৷

আত্মপ্রত্যয় ব্যক্ত করে মুখ্যমন্ত্রী এরপরেই বলেন, ‘২০১৯ বিজেপি ফিনিস, ১৪২৬ ৪২-এ ৪২৷’ এনআরসি ইস্যু নিয়ে ফের সরব হন মুখ্যমন্ত্রী, বলেন, আদিবাসীদের ওপর অত্যাচার করেছে৷ শুধু তাই নয় এদিন মোদীকে ‘বুড়ো খোকা’ বলেও কটাক্ষ করেন তিনি৷ বলেন ‘বুড়ো খোকারা দেশ ভাঙলে ভোটের থাপ্পড় দিতে হবে৷’ এরপরেই তৃণমূল সরকারের কাজের খতিয়ান তুলে ধরে তিনি বলেন, রেলমন্ত্রী থাকাকালীন যেসব প্রকল্পের পরিকল্পনা করেছিলাম ক্ষমতায় এলে ফের সব কাজ শুরু করব৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here