মহানগর ওয়েবডেস্ক: একে লকডাউন, তার উপর আমফান। বাংলার সিনেমা হলগুলি বিরাট ক্ষতির মুখে পড়েছে। বিশেষ করে রাজ্যের সিঙ্গেল স্ক্রিনগুলি সম্পূর্ণ বন্ধ থাকায় বিরাট অঙ্কের ক্ষতির মুখোমুখি হতে হয়েছে হলমালিকদের। এদিন টলিউডের সদস্যদের সঙ্গে ও ইমপার সভাপতি পিয়া সেনগুপ্ত উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মিটিং-এ।

সেখানেই রাজ্যের সিনেমা হলগুলির করুণ পরিস্থিতির কথা মুখ্যমন্ত্রীকে জানা পিয়া সেনগুপ্ত। এরই সঙ্গে এই লকডাউন চলাকালীন সিনেমা হলগুলি বন্ধ থাকায় আয়ের মুখ দেখেনি হল মালিকেরা। তার মাঝেই মোটা অঙ্কের ইলেকট্রিক বিল পাঠানোয় বেজায় চাপে তারা। এইদিকটি দেখার জন্য ও রাজ্য সরকার যাতে ভর্তুকি দেয় সেই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন পিয়া সেনগুপ্ত। যদিও মুখ্যমন্ত্রী সেদিকে সম্মতি না দিয়েই জানান রাজ্যের প্রেক্ষাগৃহগুলিতে ক্ষতিপূরণের জন্য সরকার সবরকম সাহায্য করবে।

এদিন এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে বিস্তারিত ভাবে জানান পরিচালক অরিন্দম শীল। তিনি বলেন, রাজ্যে এই মুহুর্তে ২০০ থেকে ২৫০টি সিঙ্গেল স্ক্রিন রয়েছে, সেগুলিকে বাঁচাতে হবে। এই বিষয়ে অরিন্দম বাবুকে আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এরই সঙ্গে এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, বাইরের রাজ্যের থেকে সিনেমার শ্যুটিং করতে এ রাজ্যে আসতেই পারেন। শ্যুটিং ফ্লোরে ইউনিটের সংখ্যা বাড়তেও এদিন অনুমতি দিয়েছেন মমতা। তবে এ রাজ্য থেকে এই মুহূর্তে বাইরে গিয়ে শ্যুটিং নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন মমতা। এরই সঙ্গে এদিন দর্শক ছাড়াই রাজ্যে রিয়্যালিটি শো ও নন ফিকশন অনুষ্ঠানলির শ্যুটিং-এর অনুমতি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here