news bengali kolkata

মহানগর ওয়েবডেস্ক: আমফান পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে এদিন দক্ষিণ ২৪ পরগণার কাকদ্বীপে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বর্তমানে সৃষ্টি হওয়া অভূতপূর্ব পরিস্থিতি থেকে কীভাবে ঘুরে দাঁড়ানো যায় তা ছিল এদিনের বৈঠকের আলোচ্য বিষয়। জেলাশাসক থেকে শুরু করে মন্ত্রী বিধায়করা এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। এই সংকটের মধ্যে সাধারণ মানুষ কী কী ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন তা মুখ্যমন্ত্রীর সামনে তুলে ধরা হয়। তিনিও যথাসম্ভব সাহায্যের আশ্বাস দেন। তবে করোনা ও লকডাউন পরিস্থিতির জেরে যেভাবে রাজ্যের আয় তিনমাস ধরে বন্ধ রয়েছে, সেই কারণে অসহায়তাও প্রকাশ পায় তাঁর গলায়।

এদিনের বৈঠকে পইপই করে মমতা বলেন, ত্রাণের এক টাকা নিয়েও যেন নয়-ছয় না হয়। ত্রাণের টাকা সঠিকভাবে আর্তদের হাতে পৌঁছে দেওয়ার উপরই সবচেয়ে বেশি জোর দিতে বলেন তিনি। মমতার কথায়, ‘এরকম বিধ্বংসী ভয়ঙ্কর ঝড় আগে কখনও দেখিনি। জেলায় সর্বমোট প্রায় ১০ লক্ষ বাড়ি ভেঙে গিয়েছে। ৫৬ কিলোমিটারের বেশি নদীবাঁধ গুঁড়িয়ে গিয়েছে। আমাদের এই সময় চারটে জিনিসের বিরুদ্ধে লড়তে হচ্ছে। করোনা, লকডাউন, পরিযায়ী শ্রমিক সমস্যা ও আমফান। ফলে সাধারণ মানুষের ত্রাণ নিয়ে যেন কোনও সমস্যা না হয়।’

বিপর্যয় মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে আপাতকালীন ১০০০ কোটি টাকার সাহায্য করা হলেও তা কখনই যথেষ্ট নয়। এদিন এমনটাই জানান মুখ্যমন্ত্রী। প্রায় এক লক্ষ কোটি টাকার সম্পত্তি নষ্ট হয়েছে বলে জানান তিনি। বৈঠকে উপস্থিত বিধায়কদের নির্দেশ দেন জেলাশাসকের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে সাধারণ মানুষের সাহায্যে হাত বাড়িয়ে দিতে। এই মুহূর্তে পরিকাঠামো পুনর্গঠনই যে রাজ্য সরকারের প্রধান এজেন্ডা এদিন তা স্পষ্ট করেন মমতা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here