ডেস্ক: লোকসভার মহাযুদ্ধে ইতিমধ্যেই হাত ধুয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। রাজ্য থেকে ঘাস ফুল উপড়ে ফেলতে মুকুলের সৌজন্যে দিনে দিনে ভরে উঠছে পদ্ম বাগান। তবে শুধু ঘর ভাঙার খেলা নয়, নির্বাচনের নিয়ম কানুনের উপর তীক্ষ্ণ নজরও রেখেছে গেরুয়া শিবির। আর সেই লক্ষ্যে রাঝ্যের প্রতিটি বুথকে স্পর্শকাতর ঘোষণার দাবির পাশাপাশি এবার তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নির্বাচনীবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে উপ মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

রাজ্যের নির্বাচনী কর্মকাণ্ড খতিয়ে দেখতে শনিবার সকালেই শহরে পা রেখেছেন উপ মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। তিনি রাজ্যে আসার পরই মমতার বিরুদ্ধে বিধি ভঙ্গের অভিযোগ নিয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মুকুল রায়। এদিন নির্বাচন কমিশনের দফতরে জৈনের সঙ্গে সাক্ষাতের পর সেখান থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সামনে মুকুল বলেন, ‘রাজ্যে নীতি আয়োগ লাগু হয়ে যাওয়ার পরও মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্ত্রিন্মুল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফোন করে সরকারি কাজের নির্দেশ দিয়েছেন। এটা নির্বাচনীবিধি লঙ্ঘন করে। মমতার ওই নির্দেশের ভিডিও আমরা কমিশনের কাছে জমা দিয়েছি।’ একইসঙ্গে তিনি জানান, ‘নির্বাচন কমিশনের কাছে আরও একটি দাবি আমাদের তরফে রাখা হয়েছে তা হল, বাংলার প্রতিটি বুথকে অতি স্পর্শকাতর বলে ঘোষণা করা হোক।’

উল্লেখ্য, পঞ্চায়েত নির্বাচনের বিষয়টিকে মাথায় রেখে রাজ্যের সমস্ত বুথকে অতি স্পর্শকাতর বলে ঘোষণার দাবি আগেই তুলেছে বিজেপি। নির্বাচন কমিশনের সদর দফতর দিল্লিতে গিয়ে এবিষয়ে লিখিত আবেদনও জানিয়ে এসেছেন মুকুল রায় ও কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। যদিও এই বিয়টিকে বাংলার অপমান বলে দাবি করেছেন মুকুল রায়। গতকাল থেকে এই প্রেক্ষিতে ধর্ণায় বসেছে বিজেপির মহিলা সেল। যার পাল্টা দিতে ধর্নায় বসেছে বিজেপিও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here