মহানগর ওয়েবডেস্ক: লোকসভা ভোটের আগে ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডের মঞ্চে বিরোধী ঐক্য আনার চেষ্টা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা শেষ পর্যন্ত দানা বাঁধতে পারেনি। স্বাভাবিকভাবেই লোকসভা ভোটে মুখ থুবরে পড়েছে বিরোধীরা। ভোট শেষ হওয়ার পর থেকে এখনও পর্যন্ত ছন্নছাড়া দশা চলছেই অ-বিজেপি শিবিরগুলির মধ্যে। বিরোধী দলগুলিকে ফের একছাতার তলায় নিয়ে আসার চেষ্টা এবার শুরু হচ্ছে দক্ষিণ ভারত থেকে। তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এম করুণানিধির প্রয়াণের এক বছর পূর্তির মঞ্চ থেকেই শুরু হবে সেই চেষ্টা। যার শরিক হতে আগামী ৭ অগাস্ট চেন্নাই উড়ে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সপ্তাহখানেক আগেই নবান্নে দূত পাঠিয়ে করুণানিধির প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার নিমন্ত্রণ এসেছিল তৃণমূলের নেত্রীর কাছে। সূত্রের খবর, সেই ডাকে সাড়া দিয়ে করুণানিধির মূর্তি উন্মোচন অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন মমতা। এখনও পর্যন্ত খবর, করুণানিধির মূর্তি উন্মোচন করবেন স্বয়ং মমতাই। এই মঞ্চে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বিজেপি বিরোধী প্রায় সকল দলগুলিকেই। উপস্থিত থাকবেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগনমোহন রেড্ডি, তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও ও পুদুচেরীর মুখ্যমন্ত্রী ভি নারায়নস্বামী। মূলত বিরোধী শক্তিগুলিকে ফের একবার একত্রিত করার চেষ্টা হিসেবেই দেখা হচ্ছে এই পদক্ষেপকে।

প্রসঙ্গত, আগামী ৭ আগস্ট করুনানিধির প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী। ঐদিন চেন্নাইতে তাঁর মূর্তির আনুষ্ঠানিক উন্মোচন করা হবে। দেশের সবকটি রাজ্যের মধ্যে একমাত্র তামিলনাড়ুই একটি রাজ্য যেখানে বিজেপি বিশেষ দাগ কাটতে পারেনি। কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে একটি আসন ছাড়া বাকি সবগুলি দখলে নিয়ে ডিএমকে। ফলে এই মঞ্চকে বিরোধীদের কাছে টানার অছিলা হিসেবে ব্যবহার করা যেতেই পারে। যদিও স্ট্যালিন কোনও ভাবেই এই মঞ্চকে কোনও রাজনৈতিক রং দিতে চাইছেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here