ডেস্ক: রাজ্য বাজেটের আগে তৃণমূলের বর্ধিত কোর কমিটির বৈঠকে স্বমহিমায় ধরা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে পাখির চোখ করেই এদিন আগামী কয়েকমাসের জন্য দলের উপর থেকে নিচু স্তরের সমস্ত কর্মীদের জন্য নিজের হাতেই ছক কষে দিলেন দলনেত্রী। বিরোধীদের অভিযোগ টেনে তাদের তুলোধোনা করা থেকে শুরু করে, শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যমের নাম করেই তাদের একহাত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আজকের কোর কমিটির বৈঠকে বিধায়ক, সাংসদ সহ উপস্থিত ছিলেন ব্লক সভাপতিরা। সমগ্র সংগঠনের সামনেই এদিন মমতা সাফ করলেন, বিজেপির জনবিরোধী প্রকল্পগুলিকেই পঞ্চায়েত নির্বাচনে নিজের প্রধান অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করে মানুষের মন জয় করতে চান তিনি।

একনজরে দেখে নিন আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে লক্ষ্যে নিয়ে দলকে কী বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী…

  • আগামী ৩-৪ মাসের মধ্যেই পঞ্চায়েত ভোট হবে।
  • আগস্টের মধ্যে ভোট প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে, তার আগে সব বকেয়া কাজ শেষ করতে হবে।
  • ৬ মার্চ সব ব্লকে ৭ সব জেলায় মহিলা মিছিল হবে।
  • সোশ্যাল নেটওয়ার্কে ভাল করে কাজ করতে হবে।
  • গরীব মানুষের জন্য ২৫ লক্ষ বাড়ি তৈরি হয়েছে আরও ৫ লক্ষ বাড়ি তৈরি হবে।
  • প্রতিদিন পেট্রোল-ডিজেলের বাড়তে থাকা দাম, মূল্যবৃদ্ধি, রাজ্যের ৮টি রুটে রেল লাইন বন্ধের পরিকল্পনা ও
    এফআরডিআই বিলের বিরোধিতা করা হবে।
  • মহারাষ্ট্রে কৃষক আত্মহত্যার প্রতিবাদ করা হবে।
  • মুল্যবৃদ্ধি কেন হচ্ছে ২২-২৫ জেলা সম্মেলন হবে।
  • মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের সময় মাইক ব্যবহার করে মিটিং করা যাবে না।
  • ব্লক সভাপতিরা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যারা ভাল কাজ করেছে তাদের আশেপাশে ওয়ার্ডে সুযোগ করে দিতে হবে।
  • মানুষ যা দেবেন সেটাই আশীর্বাদ হিসাবে নেব।

পঞ্চায়েত ভোট ছাড়াও এদিন মুখ্যমন্ত্রীর কথায় বারংবার উঠে আসে বিরোধীদের মন্দদর্শিতার কথা। মমতার দাবি, ভাল কাজ বিরোধীরা চোখে দেখতে পান না। একই সঙ্গে রাজ্য বাজেট নিয়েও সাধারণ মানুষকে খুশির বার্তাই দেন তিনি। এছাড়াও দৌলতাবাদের দুর্ঘটনা এবং নাম না নিয়েই মুকুল রায়কে ‘গদ্দার’ বলেও বিঁধেন তিনি। এজনজরে দেখুন কোর কমিটির বৈঠকে আরও কী কী বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়…

  • বিজেপি, কংগ্রেসের কাছে প্রচুর টাকা রয়েছে, এ রাজ্যে যথেচ্ছভাবে টাকা ওড়াচ্ছে বিজেপি।
  • তৃণমূলের টাকা নেই এবং এক ‘গদ্দার’ বিজেপিতে গিয়েছে তাই ত্রিপুরায় পিছিয়ে পড়ছে তাঁর দল।
  • বাজেট হবে সাধারণ মানুষের স্বার্থে, ভোট মাথায় রেখে নয়।
  • মানুষের বিরুদ্ধে কোনও কাজ সরকার করবে না।
  • দৌলতাবাসে চালকের ভুলে দুর্ঘটনা। প্রশাসন যথা সময়ে ব্যবস্থা নিয়েছে।
  • উদ্ধারকার্যে বাধা দেওয়া হয়েছিল।
  • ২ ঘণ্টা দমকলকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।
  • চিকিৎসায় গাফিলতি হলে সঠিক জায়যায় যান, ভাঙচুর নয়।
  • ভাঙচুরে করলে আইনানুগ ব্যবস্থা।
  • ক্যানিং ভাঙড় বাসন্তী অশান্তি নিয়ে কড়া বার্তা। অবিলম্বে গণ্ডগোল মিটিয়ে ফেলতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here