ডেস্ক: বাম দূর্গে ধস নামিয়ে ২০১১ সালে তৃণমূল কংগ্রেসকে ক্ষমতায় নিয়ে এসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তাও যেন অধরা ছিল কিছু। ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে সেই অধরা নজিরও ছুঁয়ে ফেললেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

এ রাজ্যে কংগ্রেসকে সরিয়ে বাম সরকার ক্ষমতায় আসার পরের বছরই পঞ্চায়েত নির্বাচনে রেকর্ড গড়ে ফেলেছিলেন তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু। ১৯৭৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে একসঙ্গে সবগুলি জেলা পরিষদ দখল করেছিলেন তিনি। পঞ্চায়েতে গোটা রাজ্যের মানুষের বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছিল বামফ্রন্ট সরকার। সেই সময় রাজ্যে ছিল ১৫টি জেলা পরিষদ। কংগ্রেসকে হারিয়ে সবগুলি জেলা পরিষদে থাবা বসিয়েছিল লাল পতাকা। তারপর থেকে কেটে গিয়েছে দীর্ঘ ৪০ বছর। কোনও মুখ্যমন্ত্রীর পক্ষে জ্যোতিবাবুর এই রেকর্ড স্পর্শ করা সম্ভব হয়নি। অবশেষে ২০১৮ ত্রিস্তর নির্বাচনে ২০-তে ২০ জেলা পরিষদ দখল করে সেই রেকর্ডও ছুঁয়ে ফেললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

২০১৩ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনেও বিরোধীদের হাতে বিক্ষিপ্ত কয়েকটি জেলা পরিষদ চলে গিয়েছিল। ফলে মমতার টার্গেট ‘অল ইন অল’ জেলা পরিষদ দখল এবারে গিয়ে পুরো হল। বামেদের সঙ্গে নীতিগত পার্থক্য থাকলেও ২০১৮ ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচন যেন এক করে দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও জ্যোতি বসুকে। কথায় বলে, এক যাত্রায় পৃথক ফল হতে নেই। দুজনের গতিপথও যে এক, বাংলা শাসন। তাই ৪০ বছরের ফারাকে দুই ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনও যেন মিলেমিশে এক করে দিল বাংলার প্রাক্তন ও বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here