ডেস্ক: সামনে পঞ্চায়েত নির্বাচন তার আগে মেদিনীপুরে প্রশাসনিক বৈঠকে এসে বিধায়কদের বার্তা দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দিনে দিনে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় যেভাবে গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে এসেছে সে প্রসঙ্গে বিধায়কদের রীতিমত হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, ‘সমস্ত জনপ্রতিনিধিরা একসঙ্গে কাজ করুন। আমার দলে কেউ কারও থেকে বড় নয়, নিজেরা লড়াই না করে মিলেমিশে শান্তিতে বাস করুন।’

এদিনের জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন

  • কৃষি ঋণ মঞ্জুর করার পরও, ঋণ বাতিল করেছে ইউকো ব্যাঙ্ক। ঋণ মঞ্জুরের পরও টাকা মিলছে না। পুরো বিষয়টি মুখ্যসচিবকে দেখার নির্দেশ।
  • সরকারী কাজে নতুন ঠিকাদারদের আনুন। কপালেশ্বর, কেলেকাই প্রকল্পের কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে। ঠিকমতো কাজ হচ্ছে কিনা নজর রাখুন। ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানে এখনও অনুমোদন দেয়নি কেন্দ্র। অসাধু কনট্রাক্টরদের ব্ল্যাকলিস্ট করুন।
  • কৃষাণ ক্রেডিট কার্ডের টাকা বাড়ানো হোক। সামাজিক প্রকল্পের টাকা মার্চের মধ্যেই দিতে হবে বলে জানান তিনি।
  • পুলিশ লাইনের উন্নয়নে আরও ১ কোটি টাকা বরাদ্দ করেন মুখ্যমন্ত্রী।
  • পঞ্চায়েতে যারা ভালো কাজ করেছেন, ভোটে টিকিট না পেলেও তাঁদের অন্য কাজে লাগানো হবে।
  • শহরে ফুটপাতের পরিমান আরও বাড়াতে হবে। খড়গপুরেও ফুটপাত করতে হবে। এবং দেখতে হবে ফুটপাত যেন সর্বদা চালু থাকে। নারায়ণগড়ে নতুন বাসস্ট্যান্ড করার নির্দেশ।
  • জঙ্গলকন্যা ব্রিজে আলোর ব্যবস্থা করার নির্দেশ।
  • কোশিয়াড়িতে কোল্ড স্টোরেজ করতে হবে।
  • কেলেঘাই প্রকল্পের টাকা দিচ্ছে না কেন্দ্র। এবিষয়ে রাজ্যসভার সরব হবেন তৃণমূল সাংসদরা।
  • এলাকায় কোনও বাইরের লোক এসে দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টা করলে, এবং সেই খবর কেউ পুলিশের কাছে দিলে তাঁকে পুরস্কৃত করার নির্দেশ।
  • জেলার সরকারি হাসপাতাল প্রতিদিন পরিস্কারের জন্য ৫০ জন লোক নিয়োগ করতে হবে।
  • ৪টে মাল্টিসুপার হাসপাতাল হয়েছে, এখন আর নতুন কলেজ হবে না। আমরা ৫০ থেকে ৬০ বছরের কাজ করে দিয়েছি।
  • মেদিনীপুর পৌরসভা এলাকায় আরও উন্নয়ন করতে হবে। সরকারি জমি যাতে দখল না হয় সেদিকে প্রশাসনকে কড়া নজর রাখার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here