kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নানা রাজ্যে কাতারে কাতারে ঢুকতে শুরু করেছে পরিযায়ী শ্রমিকরা। কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে রোজই প্রচুর ট্রেন চলছে এবং তাতে বাড়ি ফিরছেন লক্ষাধিক ভিনরাজ্য বাসীরা। তবে এতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা কয়েক গুণ বেড়ে যাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে এদিন সরব হয়েছিল কেরল সরকার। এবার একই পথে হাঁটলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। রাজ্যে একগাদা ট্রেন প্রবেশ নিয়ে যে তাঁর আপত্তি রয়েছে সেটা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন তিনি।

এদিন নিজের অসহায়তা ব্যক্ত করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘পঞ্চাশটি ট্রেন একসঙ্গে ঢুকিয়ে দিচ্ছে কোথায় রাখব। একদিকে জল অন্যদিকে গাছ। কোথা থেকে পরিযায়ী শ্রমিকরা আসছেন দেখতে হবে। সবাইকে কোয়ারেন্টাইন এ রাখতে হবে। ইতিমধ্যেই রাজ্যে পাঁচ লক্ষ মানুষ চলে এসেছে। দুঃখের বিষয় ইতিমধ্যেই যারা রাজ্যে চলে এসেছেন তাদের মধ্যে অনেকেই করো না পজেটিভ। তবে তারা আমাদের নিজেদের লোক তারা আসুক আমরা চাই। কিন্তু তাদের পাঠানোর আগে আমাদের সঙ্গে একবার আলোচনা করা উচিত ছিল। সঙ্গে এত লোক চলে এলে জায়গা কোথায় পাবো। এবার যদি গণ সংক্রমণ হয় তাহলে সে দায় কি কেন্দ্রীয় সরকার নেবে?’

মুখ্যমন্ত্রীর আরও অভিযোগ, ‘ট্রেন আসার ক্ষেত্রে রেড অরেঞ্জ গ্রিন জোন মানা হচ্ছে না। আমাকে পলিটিকালি ডিস্টার্ব করতে গিয়ে বাংলার ক্ষতি করছে। একদিকে করোনা একদিকে ঘূর্ণিঝড় তার মধ্যে এত লোক একসঙ্গে পাঠাচ্ছে একসঙ্গে। আমরা লিস্ট পাঠিয়ে দিয়েছিলাম কিন্তু সেই লিস্ট মানা হয়নি। এত বড় দুর্যোগ সামলাবো না আপনাদের রাজনীতির সামলাবো। সবকিছু টু মাচ করছে কেন্দ্র। লকডাউন করেছে কেন্দ্র। এদিকে রেল রেলের মত চলবে! রেলের কোনও দায়িত্ব নেই! কেউ কেউ এই রাজ্যে আক্রান্ত সংখ্যা বাড়ানোর চেষ্টা করছে। এটা কিন্তু রাজনীতি করার সময় নয়। আমি একটা কাজে এই সময় করতে পারি, আমি এই সর্বনাশা পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাইবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here