kolkata news
Parul

মহানগর ডেস্ক: পেগেসিসের মাধ্যমে বিরোধীদেই ওপর নজরদারির যে অভিযোগ সরকারের ওপর উঠেছে তা নিয়ে একুশে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে মুখ খুললেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এই নজরদারির ভয়ের কারণেই নিজের ফোন ক্যামেরা টেপ দিয়ে প্লাস্টার করে দিলেন তিনি। এদিন ভাষণে নিজের ফোন তুলে ধরে তিনি সবাইকে দেখান এবং বলেন, “মোদি সরকার স্পাইগিরি করছে। আমাদের সবার ফোন ট্যাপ করেছে। আমার সব অডিও রেকর্ড করে নিচ্ছে। এই দেখুন আমি আমার ফোনটাকে কিভাবে ‘প্লাস্টার’ করে দিয়েছি।

ads

এরপর স্পাই সফটওয়্যারের মাধ্যম ফোন হ্যাকের ইস্যুতে কেন্দ্রকে আরো এক হাত নেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “এই সরকারকেও প্লাস্টার করে দেওয়া উচিত। এইভাবে এরা ক্ষমতায় থাকতে চায়। আমি কোনো নেতার সাথে কথা বলতে পারিনা, কোনো মুখ্যমন্ত্রীর সাথে, সাংবাদিকদের সাথে কারো সাথেই কথা বলতে পারিনা পাছে সব ট্যাপ করে নেয়।” সুপ্রিম কোর্টকে এদিন মমতা অনুরোধ করেন, তাঁরা যেন পেগেসিস ইস্যুতে স্বতন্ত্র উদ্যোগে তদন্তের ব্যবস্থা করেন। ‘সুও মোটো’ কেসও ফাইল করার কথা বলেন তিনি।

সভামঞ্চ থেকে তাঁর বক্তব্য, “সবাই মনে রাখবেন। পেগেসিস সবকিছুই রেকর্ড করে রাখছে। এটি সবকিছুই দেখছে। সাধারণ মানুষ আর সুরক্ষিত নয়। আপনার ব্রেনকেও স্ক্যান করে নিচ্ছে!” তিনি আরো বলেন, “আমি প্রশান্তের সাথে কথা বলি, অভিষেকের সাথে কথা বলি, শরদ জি’র সাথে কথা বলি। ওনাদের যদি ফোন হ্যাক হয় তারমানে তো আমার কথাও ওরা রেকর্ড করেছে। এইভাবে বিরোধীদের নিয়ন্ত্রণ করতে চায় বিজেপি!”

প্রসঙ্গত পেগেসিস স্পাইওয়্যারের অনেকগুলি ভয়ঙ্কর ও চমকপ্রদ গুণাগুণ রয়েছে। এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে কারো ফোনের কল রেকর্ড, গোপনে স্ক্রিনশট নেওয়া, তথ্য চুরি এমনকি ক্যামেরার মাধ্যমে ব্যবহারকারীর অজান্তেই ছবি তুলে অন্য কাউকে প্রেরণ করা যায়। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই পদক্ষেপ যথেষ্ট যুক্তিযুক্ত এবং একই সঙ্গে চিন্তার বিষয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here